হার্ট অ্যাটাকের পরেও হার্ট থাকবে সুস্থ, প্রতিদিনের রুটিনে আনুন এই ৬ পরিবর্তন

First Published 12, Sep 2020, 1:35 PM

হার্ট আমাদের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তবে আমরা বেশিরভাগ সময়েই আমাদের হার্টের যত্ন নিতে ভুলে যাই। সম্ভবত এই কারণেই অল্প বয়স থেকেই হৃদরোগ সম্পর্কিত বেশিরভাগ রোগ দেখা যায়। বিশেষত, হার্ট অ্যাটাক সম্পর্কিত পরিসংখ্যান যুবকদের মধ্যে অত্যাধিক পরিমান বৃদ্ধি পাচ্ছে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন অনুসারে, বিশ্ব জুড়ে প্রতি বছর হৃদরোগজনিত রোগের কারণে প্রায় এক কোটি  সত্তর লক্ষ মানুষ প্রাণ হারান। একই সঙ্গে স্ট্রোক এবং হার্ট অ্যাটাক সহ মারাত্মক হৃদরোগে মৃত্য়ুর সংখ্যা প্রায় ৩০ লক্ষ। তবে দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় যদি কিছু পরিবর্তন আনা যায় তবে এই ভয়াবহ রোগের ঝুঁকির হাত থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। আপনি যদি ইতিমধ্যেই হার্ট অ্যাটাকের সমস্যায় সমস্যায় পড়ে থাকেন তবে তা থেকে মুক্তি পেতে মেনে চলতে হবে এই কয়েকটি নিয়ম-

<p>হার্ট অ্যাটাকের কারণে জীবন থমকে যায়। একজন ব্যক্তির জীবন ওষুধেই ছেয়ে যায়, ফলে অনেকক্ষেত্রেই হৃদয় আরও দুর্বল হয়ে যায়। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে, আপনি আপনার উদ্দেশ্যকে আরও শক্তিশালী করা এবং অনুশীলন করার জন্য অবলম্বন করা গুরুত্বপূর্ণ। হার্ট অ্যাটাকের পরে আপনার স্বাস্থ্য এবং শক্তি বজায় রাখতে ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। প্রতিদিনের শরীরচর্চা একমাত্র কার্যকর উপায় যা আপনার হতাশ মেজাজ এবং উদ্বেগগুলি হ্রাস করতে সহায়তা করবে।&nbsp;</p>

হার্ট অ্যাটাকের কারণে জীবন থমকে যায়। একজন ব্যক্তির জীবন ওষুধেই ছেয়ে যায়, ফলে অনেকক্ষেত্রেই হৃদয় আরও দুর্বল হয়ে যায়। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে, আপনি আপনার উদ্দেশ্যকে আরও শক্তিশালী করা এবং অনুশীলন করার জন্য অবলম্বন করা গুরুত্বপূর্ণ। হার্ট অ্যাটাকের পরে আপনার স্বাস্থ্য এবং শক্তি বজায় রাখতে ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। প্রতিদিনের শরীরচর্চা একমাত্র কার্যকর উপায় যা আপনার হতাশ মেজাজ এবং উদ্বেগগুলি হ্রাস করতে সহায়তা করবে। 

<p>কিছু কিছু স্বাস্থ্য রিপোর্ট অনুসারে, প্রত্যেক ব্যক্তির প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ১৫০ মিনিটের লক্ষ্য নির্ধারণ করে হালকা অনুশীলন করা উচিত। যেমন - দ্রুত হাঁটা, সাইকেল চালানো, ব্যাডমিন্টন খেলা ইত্যাদি এগুলি ছাড়াও আপনি এক সপ্তাহে ৭৫ মিনিটের তীব্র বডি ওয়ার্কআউটও করতে পারেন। এছাড়াও, নাচকেও অনুশীলনের একটি ভাল উপায় হিসাবে বিবেচনা করা হয়। আপনি যদি নাচতে পছন্দ করেন তবে আপনি নিজের অনুশীলনের লক্ষ্যটিও পূরণ করতে পারেন।</p>

কিছু কিছু স্বাস্থ্য রিপোর্ট অনুসারে, প্রত্যেক ব্যক্তির প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ১৫০ মিনিটের লক্ষ্য নির্ধারণ করে হালকা অনুশীলন করা উচিত। যেমন - দ্রুত হাঁটা, সাইকেল চালানো, ব্যাডমিন্টন খেলা ইত্যাদি এগুলি ছাড়াও আপনি এক সপ্তাহে ৭৫ মিনিটের তীব্র বডি ওয়ার্কআউটও করতে পারেন। এছাড়াও, নাচকেও অনুশীলনের একটি ভাল উপায় হিসাবে বিবেচনা করা হয়। আপনি যদি নাচতে পছন্দ করেন তবে আপনি নিজের অনুশীলনের লক্ষ্যটিও পূরণ করতে পারেন।

<p>যদি আপনি হার্ট অ্যাটাকের পরেও আপনার হৃদয়কে সুস্থ ও সুখী রাখতে চান তবে আরও বেশি ফল, শাকসব্জী এবং মটরশুটি খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া বাদাম, শস্য এবং মাছের মতো ডায়েট খেলে হৃদরোগের উন্নতি হবে। এমনকী আপনি আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে চর্বিযুক্ত প্রোটিন এবং কম ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধযুক্ত খাবার অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। স্বাস্থ্য খাতে করা কিছু গবেষণা থেকে জানা গেছে যে এই খাবারগুলি আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে যুক্ত করা হৃদয়জনিত রোগ থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধারে সহায়তা করে।</p>

যদি আপনি হার্ট অ্যাটাকের পরেও আপনার হৃদয়কে সুস্থ ও সুখী রাখতে চান তবে আরও বেশি ফল, শাকসব্জী এবং মটরশুটি খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া বাদাম, শস্য এবং মাছের মতো ডায়েট খেলে হৃদরোগের উন্নতি হবে। এমনকী আপনি আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে চর্বিযুক্ত প্রোটিন এবং কম ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধযুক্ত খাবার অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। স্বাস্থ্য খাতে করা কিছু গবেষণা থেকে জানা গেছে যে এই খাবারগুলি আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে যুক্ত করা হৃদয়জনিত রোগ থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধারে সহায়তা করে।

<p>ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা ক্ষতিকর তা আমরা সকলেই জানি। ধূমপান আপনার রক্তকে প্রভাবিত করে তোলে এবং আরও রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। যা দ্বিতীয় হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই হৃদয়কে সুস্থ রাখতে নিজে থেকেই ধূমপান করা এড়িয়ে চলা উচিত।</p>

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা ক্ষতিকর তা আমরা সকলেই জানি। ধূমপান আপনার রক্তকে প্রভাবিত করে তোলে এবং আরও রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। যা দ্বিতীয় হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই হৃদয়কে সুস্থ রাখতে নিজে থেকেই ধূমপান করা এড়িয়ে চলা উচিত।

<p>আমরা সকলেই জানি যে কীভাবে মানসিক চাপ আমাদের রক্তচাপকে বাড়িয়ে তুলতে পারে যা আমাদের হৃদয়ের পক্ষে ক্ষতিকর। এর জন্য একটি সহজ সমাধান হল, প্রতিদিনের ক্রিয়াকলাপে এমন যুক্ত করুন যা আপনার চাপ কমাতে সহায়ক। মনের উপর যত বেশি জোর দেওয়া হবে তত বেশি মন শান্ত হবে এবং মন যত বেশি শান্ত হবে ততই ঘুম ভাল হবে। একটি ভাল এবং সুস্থ ঘুম আপনাকে সুস্বাস্থ্যও দেবে।</p>

আমরা সকলেই জানি যে কীভাবে মানসিক চাপ আমাদের রক্তচাপকে বাড়িয়ে তুলতে পারে যা আমাদের হৃদয়ের পক্ষে ক্ষতিকর। এর জন্য একটি সহজ সমাধান হল, প্রতিদিনের ক্রিয়াকলাপে এমন যুক্ত করুন যা আপনার চাপ কমাতে সহায়ক। মনের উপর যত বেশি জোর দেওয়া হবে তত বেশি মন শান্ত হবে এবং মন যত বেশি শান্ত হবে ততই ঘুম ভাল হবে। একটি ভাল এবং সুস্থ ঘুম আপনাকে সুস্বাস্থ্যও দেবে।

<p><span style="font-size:14px;">&nbsp;কোনও রোগের সঙ্গে লড়াই করতে গেলে ঝুঁকিটি জানা দরকার। আপনি যদি আপনার হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন হন তবে আপনি এটি মোকাবেলা করতে সহজ হবেন। আপনি আপনার স্বাস্থ্যের প্রতি সতর্ক না হওয়া অবধি অসুস্থতাগুলি আপনার জীবনে তাড়া করে বেড়াবে। এই পদ্ধতিগুলির সাহায্যে আপনি হার্ট অ্যাটাকের পরেও ফিট থাকতে পারেন এবং আপনার হার্টের স্বাস্থ্যকে ভাল অবস্থায় রাখতে পারেন।</span></p>

 কোনও রোগের সঙ্গে লড়াই করতে গেলে ঝুঁকিটি জানা দরকার। আপনি যদি আপনার হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন হন তবে আপনি এটি মোকাবেলা করতে সহজ হবেন। আপনি আপনার স্বাস্থ্যের প্রতি সতর্ক না হওয়া অবধি অসুস্থতাগুলি আপনার জীবনে তাড়া করে বেড়াবে। এই পদ্ধতিগুলির সাহায্যে আপনি হার্ট অ্যাটাকের পরেও ফিট থাকতে পারেন এবং আপনার হার্টের স্বাস্থ্যকে ভাল অবস্থায় রাখতে পারেন।

loader