সেনা জওয়ানদের হাতে তুলে দিলেন বড়দিনের কেক, লাদাখের ফরোয়ার্ড এলাকায় সেনা প্রধান

First Published Dec 23, 2020, 4:37 PM IST

চিনের সঙ্গে চলমান অস্থিরতার কারণে এবার ভারতীয় সেনা জওয়ানরা শীতকালেই লাদাখের উচ্চতর এলাকায় মোতায়েন রয়েছে। উচ্চতর এলাকায় মোতায়েন সেনা জওয়ানদের সঙ্গে দেখা করলেন দেশের সেনা প্রধান জেনালের এমএম নারাভানে। বুবধার তিনি পূর্ব সেক্টরের উচ্চতর এলাকাগুলি পরিদর্শন করেন। সেনা জওয়ার হাতে তুলেদের ক্রিসমাসের উপহার। 
 

<p><strong>সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেন এম এম নারাভাবে বুধবার পূর্ব লাদাখ সেক্টরের উচ্চতর বেশকয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করেন। যার মধ্যে রেচিং লা এলাকা। এখানে দীর্ঘ সময় চিনা সেনা ও ভারতীয় সেনা মুখোমুখি অবস্থান করেছিল। এছাড়াও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবার বেশ কয়েকটি সেনা ঘাঁটিতে গিয়েছিলেন তিনি।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেন এম এম নারাভাবে বুধবার পূর্ব লাদাখ সেক্টরের উচ্চতর বেশকয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করেন। যার মধ্যে রেচিং লা এলাকা। এখানে দীর্ঘ সময় চিনা সেনা ও ভারতীয় সেনা মুখোমুখি অবস্থান করেছিল। এছাড়াও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবার বেশ কয়েকটি সেনা ঘাঁটিতে গিয়েছিলেন তিনি। 
 

<p><strong>চিনের সঙ্গে চলমান বিবাদের কারণে পূর্ব লাদাখ সেক্টরের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে মোতায়েন রয়েছে প্রায় ৫০ হাজার ভারতীয় সেনা জওয়ান। চিনও একই সংখ্যক সেনা মোতায়েন রেখেছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

চিনের সঙ্গে চলমান বিবাদের কারণে পূর্ব লাদাখ সেক্টরের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে মোতায়েন রয়েছে প্রায় ৫০ হাজার ভারতীয় সেনা জওয়ান। চিনও একই সংখ্যক সেনা মোতায়েন রেখেছে। 
 

<p><strong>পূর্ব লাদাখ সেক্টরের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিস্তীর্ণ এলাকায় বর্তমানে তাপমাত্রা শূণ্য ডিগ্রিরও নিচে। চিনার সেনার পাশাপাশি প্রতিকৃল আবহাওয়ার সঙ্গেও লড়াই করতে হচ্ছে ভারতীয় জওয়ানদের।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

পূর্ব লাদাখ সেক্টরের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিস্তীর্ণ এলাকায় বর্তমানে তাপমাত্রা শূণ্য ডিগ্রিরও নিচে। চিনার সেনার পাশাপাশি প্রতিকৃল আবহাওয়ার সঙ্গেও লড়াই করতে হচ্ছে ভারতীয় জওয়ানদের। 
 

<p><strong>লে-ভিত্তিক ১৪ নম্বর &nbsp;কর্পসের কমান্ডার ল্যাফটেন্যান্ট জেনারেল পিজি কে মেনন। সেনা বাহিনীর অন্দরে তিনি ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি নামে পরিচিত, সেই মেননই এদিন সেনা প্রধানকে ফরোয়াড এলাকায় নিয়ে যান। গোটা পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেন।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

লে-ভিত্তিক ১৪ নম্বর  কর্পসের কমান্ডার ল্যাফটেন্যান্ট জেনারেল পিজি কে মেনন। সেনা বাহিনীর অন্দরে তিনি ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি নামে পরিচিত, সেই মেননই এদিন সেনা প্রধানকে ফরোয়াড এলাকায় নিয়ে যান। গোটা পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেন। 
 

<p><strong>&nbsp;সেনা প্রধান এম এম নারাভানে ফরোয়াড এলাকায় মোতায়েন হওয়া জওয়ানদের উদ্যোগ আর উদ্দীপনার সঙ্গে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।&nbsp;</strong></p>

 সেনা প্রধান এম এম নারাভানে ফরোয়াড এলাকায় মোতায়েন হওয়া জওয়ানদের উদ্যোগ আর উদ্দীপনার সঙ্গে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। 

<p><strong>প্রবল ঠান্ডা উপেক্ষা করে বুধবার সকাল ৮টা লাদাখ পৌঁছে যান সেনা প্রধান। শীতকালে গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্যই তাঁর এই এক দিনের সফর। তিনি ফরোয়াড এলাকায় মোতায়েন থাকা জওয়ানদের ক্রিসমাস ও নতুন বছরের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

প্রবল ঠান্ডা উপেক্ষা করে বুধবার সকাল ৮টা লাদাখ পৌঁছে যান সেনা প্রধান। শীতকালে গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্যই তাঁর এই এক দিনের সফর। তিনি ফরোয়াড এলাকায় মোতায়েন থাকা জওয়ানদের ক্রিসমাস ও নতুন বছরের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। 
 

<p><strong>সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেন এম এম নারাভাবে বুধবার পূর্ব লাদাখ সেক্টরের উচ্চতর বেশকয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করেন। যার মধ্যে রেচিং লা এলাকা। এখানে দীর্ঘ সময় চিনা সেনা ও ভারতীয় সেনা মুখোমুখি অবস্থান করেছিল। এছাড়াও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবার বেশ কয়েকটি সেনা ঘাঁটিতে গিয়েছিলেন তিনি।&nbsp;</strong></p>

সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেন এম এম নারাভাবে বুধবার পূর্ব লাদাখ সেক্টরের উচ্চতর বেশকয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করেন। যার মধ্যে রেচিং লা এলাকা। এখানে দীর্ঘ সময় চিনা সেনা ও ভারতীয় সেনা মুখোমুখি অবস্থান করেছিল। এছাড়াও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবার বেশ কয়েকটি সেনা ঘাঁটিতে গিয়েছিলেন তিনি। 

<p><strong>ভারতীয় সেনা জওয়ানদের মনোবল বাড়াতেই তাঁর এই সফর বলেই দাবি করে সেনা বাহিনীর একাংশ। তিনি দীর্ঘ সময় থাকেন, কথাও বলেন কর্তব্যরত সেনা জওয়ানদের সঙ্গে।&nbsp;</strong></p>

ভারতীয় সেনা জওয়ানদের মনোবল বাড়াতেই তাঁর এই সফর বলেই দাবি করে সেনা বাহিনীর একাংশ। তিনি দীর্ঘ সময় থাকেন, কথাও বলেন কর্তব্যরত সেনা জওয়ানদের সঙ্গে। 

<p><strong>সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, সেনা জওয়ানদের স্বাচ্ছন্দে রাখার জন্য যে যে পরিকাঠামো গঠন করা হয়েছে তার প্রশংসা করেন তিনি।&nbsp;</strong></p>

সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, সেনা জওয়ানদের স্বাচ্ছন্দে রাখার জন্য যে যে পরিকাঠামো গঠন করা হয়েছে তার প্রশংসা করেন তিনি। 

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন