চিনাদের প্রতিহত করতেই কি সুপারসনিক ব্রহ্মোস, দেখেনিন আরও কতটা শক্তিশালী হল ভারত

First Published 1, Oct 2020, 1:47 PM

লাদাখে চিনের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান উত্তাপের মধ্যেই ভারত আরও বেশি শক্তি বাড়িয়ে নিয় ব্রহ্মোস মিসাইলের। বুধবার ওড়িশা উপকূলে সুপারসনিক ব্রহ্মোস-এর সফল উৎক্ষেপন হয় বলেও জানান হয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অধীনে থাকা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট সংস্থা। সংস্থার পক্ষ থেকে আরও জানান হয়েছে এই ব্রহ্মোস আর শক্তিশালী হয়েছে। 

<p><strong>ভারতের হাতে এল সুপারসনিক ব্রহ্মোস। নতুন প্রযুক্তি সম্পন্ন ব্রহ্মোস আরও শক্তিশালী। জানিয়েছে ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সংস্থা বা ডিআরডিও।</strong></p>

ভারতের হাতে এল সুপারসনিক ব্রহ্মোস। নতুন প্রযুক্তি সম্পন্ন ব্রহ্মোস আরও শক্তিশালী। জানিয়েছে ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সংস্থা বা ডিআরডিও।

<p><strong>বুধবার ওড়িশার চাঁদিপুরে দেশীয় প্রযুক্তি সম্পন্ন এই মিসাইলটির সফল উৎক্ষেপণ হয়। তারপরই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।&nbsp;</strong></p>

বুধবার ওড়িশার চাঁদিপুরে দেশীয় প্রযুক্তি সম্পন্ন এই মিসাইলটির সফল উৎক্ষেপণ হয়। তারপরই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। 

<p><strong>নতুন প্রযুক্তি সম্পন্ন এই ব্রহ্মোস মিসাইলটি মাটি, সমুদ্রের পাশাপাশি যুদ্ধবিমান থেকেই নিক্ষেপ করা যাবে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

নতুন প্রযুক্তি সম্পন্ন এই ব্রহ্মোস মিসাইলটি মাটি, সমুদ্রের পাশাপাশি যুদ্ধবিমান থেকেই নিক্ষেপ করা যাবে। 
 

<p><strong>প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে নতুন এই মিসাইলটি ৪০০ কিলোমিটারেও বেশি দূরে থাকা লক্ষবস্তুকে আঘাত আনতে পারবে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে নতুন এই মিসাইলটি ৪০০ কিলোমিটারেও বেশি দূরে থাকা লক্ষবস্তুকে আঘাত আনতে পারবে। 
 

<p><strong>শব্দের থেকেও দ্রুতগতি সম্পন্ন এই মিসাইলের গতি ম্যাক ২.৮। সমর বিশেষজ্ঞদের কথায় শব্দের থেকেও তিন গুণ দ্রুতগতিতে ছুটবে এটি।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

শব্দের থেকেও দ্রুতগতি সম্পন্ন এই মিসাইলের গতি ম্যাক ২.৮। সমর বিশেষজ্ঞদের কথায় শব্দের থেকেও তিন গুণ দ্রুতগতিতে ছুটবে এটি। 
 

<p><strong>ব্রহ্মোস একটি দ্বিতীয় পর্যায়ের ক্ষেপণাস্ত্র। এটির একটি শক্তি প্রপঞ্চল বুস্টার ইঞ্জিন থাকে। প্রথম পর্যায়ে যা এটিতে সুপারসনিক গতি নিয়ে আসে। তারপর এটি থেকে পৃথক হয়ে যায়। ভারত &nbsp;ও রাশিয়ার যৌথ উদ্যোগে এটি তৈর করা হয়েছিল।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

ব্রহ্মোস একটি দ্বিতীয় পর্যায়ের ক্ষেপণাস্ত্র। এটির একটি শক্তি প্রপঞ্চল বুস্টার ইঞ্জিন থাকে। প্রথম পর্যায়ে যা এটিতে সুপারসনিক গতি নিয়ে আসে। তারপর এটি থেকে পৃথক হয়ে যায়। ভারত  ও রাশিয়ার যৌথ উদ্যোগে এটি তৈর করা হয়েছিল। 
 

<p><strong>&nbsp;দ্বিতীয় পর্যায়ে মিসাইলটির গতি অনেকটাই বাড়ান হয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্রটির উড়ান পরিসর ২৯০ কিলোমিটার। এটির প্রতিটি উড়ানেই সুপারসনিক গতি আনতে পারে।&nbsp;</strong></p>

 দ্বিতীয় পর্যায়ে মিসাইলটির গতি অনেকটাই বাড়ান হয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্রটির উড়ান পরিসর ২৯০ কিলোমিটার। এটির প্রতিটি উড়ানেই সুপারসনিক গতি আনতে পারে। 

<p><strong>বিশ্বের যে কোনও অস্ত্র সিস্টেমের মাধ্যমে এটি উৎক্ষেপণ করা যায়।&nbsp;</strong></p>

বিশ্বের যে কোনও অস্ত্র সিস্টেমের মাধ্যমে এটি উৎক্ষেপণ করা যায়। 

loader