২০ লক্ষ কোটির টাকার সাহায্য, কোন খাতে কত দেওয়া হল - দেখে নিন পাই টু পাই হিসাব

First Published 17, May 2020, 3:31 PM

গত মঙ্গলবার (১২ মে) প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কোভিড-১৯ সংকট মোকাবিলা এবং দেশকে 'স্বাবলম্বী' করে তোলার জন্য ২০ লক্ষ কোটি টাকার অর্থনৈতিক উদ্দীপনা প্যাকেজ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। তারপরের দিন থেকেই এই প্যাকেজের বিভিন্ন পদক্ষেপগুলির কথা ঘোষণা করতে শুরু করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। যার পঞ্চম তথা চূড়ান্ত ঘোষণা এসেছে রবিবার। একনজরে দেখে নেওয়া যাত ২০ লক্ষ কোটি টাকার 'আত্ম-নির্ভর ভারত' অর্থনৈতিক উদ্দীপনা প্যাকেজের পাই টু পাই হিসাব -  

 

<p style="text-align: justify;"><strong>আগে নেওয়া পদক্ষেপ: ১,৯২,০০০ কোটি টাকা</strong></p>

<p style="text-align: justify;">২২ মার্চ থেকে কর ছাড়ের কারণে রাজস্ব হ্রাস: ৭,৮০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্যাকেজ: ১,৭০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">স্বাস্থ্য খাতে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা: ১৫,০০০ কোটি টাকা</p>

আগে নেওয়া পদক্ষেপ: ১,৯২,০০০ কোটি টাকা

২২ মার্চ থেকে কর ছাড়ের কারণে রাজস্ব হ্রাস: ৭,৮০০ কোটি টাকা

প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্যাকেজ: ১,৭০,০০০ কোটি টাকা

স্বাস্থ্য খাতে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা: ১৫,০০০ কোটি টাকা

<p style="text-align: justify;"><strong>প্রথম দিনের ঘোষণা: ৫,৯৪,৫৫ কোটি টাকা</strong></p>

<p style="text-align: justify;">১৩ মে থেকে শুরু হওয়া দ্বিতীয় দফার প্যাকেজের প্রথম দিন সরকারে ফোকাস ছিল ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রদান এবং ব্যাঙ্ক এবং বিদ্যুত বিতরণ সংস্থাগুলি সহায়তা।</p>

<p style="text-align: justify;">এমএসএমই সহ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য এমার্জেন্সি ক্যাপিটাল: ৩ লক্ষ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">চাপে থাকা এমএসএমই-গুলির জন্য ঋণ: ২০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">এমএসএমইগুলির জন্য তহবিল: ৫০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এবং কর্মীদের জন্য ইপিএফ সাহায্য়: ২,৮০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">ইপিএফ-এর হার হ্রাস: ৬,৭৫০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">এনবিএফসি, এইচএফসি এবং এমজিআইএস-এর জন্য বিশেষ লিকুইডিটি প্রকল্প: ৩০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">এনবিএফসি এবং এমএফআই-গুলির দায়বদ্ধতার জন্য পার্শিয়াল ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম ২.০: ৪৫,০০০ কোটি টাকা</p>

<p style="text-align: justify;">ডিসকমস বা সরবরাহ সংস্থাগুলির জন্য টিডিএস / টিসিএস-এর হারে ৯০,০০০ কোটি হ্রাস: ৫০,০০০ কোটি</p>

প্রথম দিনের ঘোষণা: ৫,৯৪,৫৫ কোটি টাকা

১৩ মে থেকে শুরু হওয়া দ্বিতীয় দফার প্যাকেজের প্রথম দিন সরকারে ফোকাস ছিল ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রদান এবং ব্যাঙ্ক এবং বিদ্যুত বিতরণ সংস্থাগুলি সহায়তা।

এমএসএমই সহ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য এমার্জেন্সি ক্যাপিটাল: ৩ লক্ষ কোটি টাকা

চাপে থাকা এমএসএমই-গুলির জন্য ঋণ: ২০,০০০ কোটি টাকা

এমএসএমইগুলির জন্য তহবিল: ৫০,০০০ কোটি টাকা

ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এবং কর্মীদের জন্য ইপিএফ সাহায্য়: ২,৮০০ কোটি টাকা

ইপিএফ-এর হার হ্রাস: ৬,৭৫০ কোটি টাকা

এনবিএফসি, এইচএফসি এবং এমজিআইএস-এর জন্য বিশেষ লিকুইডিটি প্রকল্প: ৩০,০০০ কোটি টাকা

এনবিএফসি এবং এমএফআই-গুলির দায়বদ্ধতার জন্য পার্শিয়াল ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম ২.০: ৪৫,০০০ কোটি টাকা

ডিসকমস বা সরবরাহ সংস্থাগুলির জন্য টিডিএস / টিসিএস-এর হারে ৯০,০০০ কোটি হ্রাস: ৫০,০০০ কোটি

<p><strong>দ্বিতীয় দিনের ঘোষণা: ৩,১০,০০০ কোটি টাকা</strong></p>

<p>দ্বিতীয় দিনের ঘোষণার লক্ষ্য ছিল আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের নিখরচায় খাদ্যশস্য দান এবং কৃষকদের ঋণের ব্যবস্থা।</p>

<p>অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য ২ মাসের জন্য বিনামূল্যে খাদ্যশস্য: ৩,৫০০ কোটি টাকা</p>

<p>মুদ্রা শিশু ঋণের সুদে ভর্তুকি: ১,৫০০ কোটি</p>

<p>রাস্তার বিক্রেতাদের জন্য বিশেষ ঋণের সুবিধা: ৫,০০০ কোটি</p>

<p>এলএসএস-এমআইজি হাউজিং প্রকল্পে: ৭০,০০০ কোটি</p>

<p>নাবার্ড-এর মাধ্যমে অতিরিক্ত জরুরি তহবিল: ৩০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p>কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অতিরিক্ত ঋণ: ২ লক্ষ কোটি টাকা</p>

দ্বিতীয় দিনের ঘোষণা: ৩,১০,০০০ কোটি টাকা

দ্বিতীয় দিনের ঘোষণার লক্ষ্য ছিল আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের নিখরচায় খাদ্যশস্য দান এবং কৃষকদের ঋণের ব্যবস্থা।

অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য ২ মাসের জন্য বিনামূল্যে খাদ্যশস্য: ৩,৫০০ কোটি টাকা

মুদ্রা শিশু ঋণের সুদে ভর্তুকি: ১,৫০০ কোটি

রাস্তার বিক্রেতাদের জন্য বিশেষ ঋণের সুবিধা: ৫,০০০ কোটি

এলএসএস-এমআইজি হাউজিং প্রকল্পে: ৭০,০০০ কোটি

নাবার্ড-এর মাধ্যমে অতিরিক্ত জরুরি তহবিল: ৩০,০০০ কোটি টাকা

কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অতিরিক্ত ঋণ: ২ লক্ষ কোটি টাকা

<p><strong>তৃতীয় দিনের ঘোষণা: ১,৫০,০০০ কোটি টাকা</strong></p>

<p>এই দিনের ঘোষণা ছিল ক্ষুদ্র খাদ্য প্রকল্পকে বিশ্বমানের করে তোলা, মৎসজীবীদের সহায়তা এবং কৃষি ও পশুপালন পরিকাঠামোগত উন্নয়ন।</p>

<p>এমএফই: ১০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p>প্রধানমন্ত্রী মৎস্য সম্পদ যোজনা: ২০,০০০ কোটি টাকা</p>

<p>টপ টু টোটাল: ৫০০ কোটি টাকা</p>

<p>কৃষি পরিকাঠামো উন্নয়ন তহবিল: ১ লক্ষ কোটি টাকা</p>

<p>পশুপালন পরিকাঠামো উন্নয়ন তহবিল: ১৫,০০০ কোটি টাকা</p>

<p>ভেষজ চাষে: ৪,০০০ কোটি</p>

<p>মৌমাছি পালন উদ্যোগে: ৫০০ কোটি টাকা</p>

<p>&nbsp;</p>

<p>&nbsp;</p>

তৃতীয় দিনের ঘোষণা: ১,৫০,০০০ কোটি টাকা

এই দিনের ঘোষণা ছিল ক্ষুদ্র খাদ্য প্রকল্পকে বিশ্বমানের করে তোলা, মৎসজীবীদের সহায়তা এবং কৃষি ও পশুপালন পরিকাঠামোগত উন্নয়ন।

এমএফই: ১০,০০০ কোটি টাকা

প্রধানমন্ত্রী মৎস্য সম্পদ যোজনা: ২০,০০০ কোটি টাকা

টপ টু টোটাল: ৫০০ কোটি টাকা

কৃষি পরিকাঠামো উন্নয়ন তহবিল: ১ লক্ষ কোটি টাকা

পশুপালন পরিকাঠামো উন্নয়ন তহবিল: ১৫,০০০ কোটি টাকা

ভেষজ চাষে: ৪,০০০ কোটি

মৌমাছি পালন উদ্যোগে: ৫০০ কোটি টাকা

 

 

<p><strong>চতুর্থ ও পঞ্চম দিনের ঘোষণা: ৪৮,১০০ কোটি টাকা</strong></p>

<p>চতুর্থ এবং পঞ্চম পঞ্চমদিনের ঘোষণার বেশিরভাগই কাঠামোগত সংস্কারের।</p>

<p>ভায়াবিলিটি গ্যাপ তহবিল: ৮,১০০ কোটি</p>

<p>মনরেগা-য় অতিরিক্ত: ৪০,০০০ কোটি</p>

<p>&nbsp;</p>

চতুর্থ ও পঞ্চম দিনের ঘোষণা: ৪৮,১০০ কোটি টাকা

চতুর্থ এবং পঞ্চম পঞ্চমদিনের ঘোষণার বেশিরভাগই কাঠামোগত সংস্কারের।

ভায়াবিলিটি গ্যাপ তহবিল: ৮,১০০ কোটি

মনরেগা-য় অতিরিক্ত: ৪০,০০০ কোটি

 

<p><strong>আরবিআই-এর পদক্ষেপ</strong></p>

<p>এর পাশাপাশি আগেই আরবিআই-এর পক্ষ থেকে মার্চ থেকে যে ৮,০১,৬০৩ কোটি টাকার লিকুইটি পদক্ষেপের কতা ঘোষণা করা হয়েছিল। সবমিলিয়ে 'আত্ম-নির্ভর ভারত' আর্থনৈতিক উদ্দীপনা প্যাকেজের পরিমাণ ২০,৯৭,০৫৩ কোটি টাকার।</p>

<p>&nbsp;</p>

আরবিআই-এর পদক্ষেপ

এর পাশাপাশি আগেই আরবিআই-এর পক্ষ থেকে মার্চ থেকে যে ৮,০১,৬০৩ কোটি টাকার লিকুইটি পদক্ষেপের কতা ঘোষণা করা হয়েছিল। সবমিলিয়ে 'আত্ম-নির্ভর ভারত' আর্থনৈতিক উদ্দীপনা প্যাকেজের পরিমাণ ২০,৯৭,০৫৩ কোটি টাকার।

 

loader