বিজ্ঞানীদের হ্যাঁ বলার অপেক্ষা - সর্বদলীয় বৈঠকের পরই ভ্যাকসিন নিয়ে বিরাট ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

First Published Dec 4, 2020, 2:39 PM IST

আর কয়েক সপ্তাহ দূরে কোভিড -১৯ ভ্যাকসিন। জানিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন এই বিষয়ে ছিল সর্বদলীয় বৈঠক। সেই বৈঠকের পরই এই ঘোষণা করলেন মোদী।

 

<p>ভারতে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই আসছে করোনার ভ্যাকসিন। শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠকের পর ঘোষণা করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরও জানান, স্বাস্থ্য পরিষেবা কর্মী, অন্যান্য ফ্রন্টলাইন কর্মী এবং গুরুতর অসুস্থতায় ভুগছেন এমন প্রবীণ ব্যক্তিদেরই প্রথম টিকা প্রদান করা হবে।</p>

<p>&nbsp;</p>

ভারতে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই আসছে করোনার ভ্যাকসিন। শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠকের পর ঘোষণা করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরও জানান, স্বাস্থ্য পরিষেবা কর্মী, অন্যান্য ফ্রন্টলাইন কর্মী এবং গুরুতর অসুস্থতায় ভুগছেন এমন প্রবীণ ব্যক্তিদেরই প্রথম টিকা প্রদান করা হবে।

 

<p>এদিন লোকসভা ও রাজ্যসভার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বর্তমান কোভিড -১৯ মহামারি পরিস্থিতি ও ভ্যাকসিনের বিকাশ নিয়ে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠতে যোগ দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও। সেই ভার্চুয়াল সভার পরই নরেন্দ্র মোদী জানান, ভারতে তৈরি হবে এমন প্রায় আটটি ভ্যাকসিন পরীক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে। এরমধ্যে তিনটি ভ্যাকসিন প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন ভ্যাকসিন হাতে পেতে আর খুব বেশিদিন লাগবে না।</p>

<p>&nbsp;</p>

এদিন লোকসভা ও রাজ্যসভার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বর্তমান কোভিড -১৯ মহামারি পরিস্থিতি ও ভ্যাকসিনের বিকাশ নিয়ে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠতে যোগ দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও। সেই ভার্চুয়াল সভার পরই নরেন্দ্র মোদী জানান, ভারতে তৈরি হবে এমন প্রায় আটটি ভ্যাকসিন পরীক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে। এরমধ্যে তিনটি ভ্যাকসিন প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন ভ্যাকসিন হাতে পেতে আর খুব বেশিদিন লাগবে না।

 

<p>ভ্যাকসিন বিতরণের লক্ষ্যে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দল একসঙ্গে কাজ করছে বলেও এদিন আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি জানান ভ্যাকসিন বিতরণের বিষয়ে ভারতের অভিজ্ঞতার পাশাপাশি দক্ষতাও রয়েছে।</p>

<p>&nbsp;</p>

ভ্যাকসিন বিতরণের লক্ষ্যে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দল একসঙ্গে কাজ করছে বলেও এদিন আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি জানান ভ্যাকসিন বিতরণের বিষয়ে ভারতের অভিজ্ঞতার পাশাপাশি দক্ষতাও রয়েছে।

 

<p>তিনি আরও জানিয়েছেন, পুরো সস্তা ও নিরাপদ ভ্যাকসিনের জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে আছে। কিন্তু ভারত সরকার তাড়াহুড়ো করছে না। বিজ্ঞানীরা সবুজ সঙ্কেত দিলেই ভারতের টিকা দেওয়া শুরু হবে। বিজ্ঞানীরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরির বিষয়ে প্রয়াসে সফল হবে বলে অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসী।</p>

<p>&nbsp;</p>

তিনি আরও জানিয়েছেন, পুরো সস্তা ও নিরাপদ ভ্যাকসিনের জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে আছে। কিন্তু ভারত সরকার তাড়াহুড়ো করছে না। বিজ্ঞানীরা সবুজ সঙ্কেত দিলেই ভারতের টিকা দেওয়া শুরু হবে। বিজ্ঞানীরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরির বিষয়ে প্রয়াসে সফল হবে বলে অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসী।

 

<p>এদিনের সর্বদলীয় বৈঠকে লোকসভা এবং রাজ্যসভার সমস্ত দলের পরিষদীয় দলনেতারা অংশ নিয়েছিলেন। কংগ্রেসের পক্ষে ছিলেন রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদ, তৃণমূলের পক্ষে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, এনসিপি-র শরদ পাওয়ার, টিআরএস-এর নাম নাগেশ্বর রাও, শিবসেনার বিনায়ক রাউত প্রমুখ।</p>

<p>&nbsp;</p>

এদিনের সর্বদলীয় বৈঠকে লোকসভা এবং রাজ্যসভার সমস্ত দলের পরিষদীয় দলনেতারা অংশ নিয়েছিলেন। কংগ্রেসের পক্ষে ছিলেন রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদ, তৃণমূলের পক্ষে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, এনসিপি-র শরদ পাওয়ার, টিআরএস-এর নাম নাগেশ্বর রাও, শিবসেনার বিনায়ক রাউত প্রমুখ।

 

<p>কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে ছিলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন, সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশী এবং দুই প্রতিমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল এবং ভি মুরলিধরন।</p>

<p>&nbsp;</p>

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে ছিলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন, সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশী এবং দুই প্রতিমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল এবং ভি মুরলিধরন।

 

<p>সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী মোদী করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের বিকাশের পর্যালোচনা করতে আহমেদাবাদ, হায়দরাবাদ ও পুনেতে তিনটি ওযুধ সংস্থার গবেষণাগার ও উৎপাদন ইউনিট পরিদর্শন করেতে গিয়েছিলেন।</p>

<p>&nbsp;</p>

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী মোদী করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের বিকাশের পর্যালোচনা করতে আহমেদাবাদ, হায়দরাবাদ ও পুনেতে তিনটি ওযুধ সংস্থার গবেষণাগার ও উৎপাদন ইউনিট পরিদর্শন করেতে গিয়েছিলেন।

 

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন