১২ অক্টোবর চিন-ভারত সেনা কর্তাদের বৈঠক, এখনও লাদাখ ছাড়ার কোনও লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না লালফৌজদের

First Published 6, Oct 2020, 9:20 AM

আগামী ১২ অক্টোবর চিনা সেনাকর্তাদের আবারও বৈঠকে বসবে ভারতের সেনা বাহিনীর কর্তারা। আগামী দিনে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকা  থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়া নিয়ে কথা হবে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত পিপিলস লিবারেশন আর্মির মধ্যে সেনা সরিয়ে নেওয়ার তেমন কোনও উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। ভারতীয় সেনা বাহিনী সূত্রের খবর পিপিলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা শীতকালেও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকায় ঘাঁটি তৈরি করে বসে থাকার জন্য এখন থেকে তৈরি হচ্ছে। 

<p><strong>১২ অক্টোবর চিনা সেনা কর্তাদের সঙ্গে আবারও বৈঠকে বসবে ভারত। পূর্ব লাদাখ সেক্টরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর এলাকায় সেনা সরিয়ে নেওয়া ও সীমান্ত উত্তাপ প্রসমনের বিষয়ে কথা হবে। চলমান লাদাখ উত্তেজনার মধ্যে এই নিয়ে ৭ বার বৈঠক হতে চলেছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত চিনা সেনাদের মধ্যে তেমন নিষ্ক্রিয়করণ নিয়ে তেমন কোনও উদ্যোগ দেখা যায়নি।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

১২ অক্টোবর চিনা সেনা কর্তাদের সঙ্গে আবারও বৈঠকে বসবে ভারত। পূর্ব লাদাখ সেক্টরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর এলাকায় সেনা সরিয়ে নেওয়া ও সীমান্ত উত্তাপ প্রসমনের বিষয়ে কথা হবে। চলমান লাদাখ উত্তেজনার মধ্যে এই নিয়ে ৭ বার বৈঠক হতে চলেছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত চিনা সেনাদের মধ্যে তেমন নিষ্ক্রিয়করণ নিয়ে তেমন কোনও উদ্যোগ দেখা যায়নি। 
 

<p><strong>সেনা বাহিনী সূত্রে খবর শীতকালের জন্য তৈরি হচ্ছে চিনা সেনা। একের পর এক জায়গায় সেনা ছাউনি তৈরি হয়েছে। প্রতিটি কন্টেনারে ৪-৬ জন সেনা রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

সেনা বাহিনী সূত্রে খবর শীতকালের জন্য তৈরি হচ্ছে চিনা সেনা। একের পর এক জায়গায় সেনা ছাউনি তৈরি হয়েছে। প্রতিটি কন্টেনারে ৪-৬ জন সেনা রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 
 

<p><strong>বেশ কয়েকটি কন্টেনারে হাসপাতালের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। অতি উচ্চতায় বা প্রবল শীতে অসুস্থ হয়ে যাওয়া চিনা সেনাদের চিকিৎসার প্রাথমিক ব্যবস্থা করা হয়েছে।&nbsp;</strong></p>

বেশ কয়েকটি কন্টেনারে হাসপাতালের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। অতি উচ্চতায় বা প্রবল শীতে অসুস্থ হয়ে যাওয়া চিনা সেনাদের চিকিৎসার প্রাথমিক ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

<p><strong>শীতকালে থাকার জন্য বেশ তাঁবুতে সৌর প্যানেল হিটার বসানো হয়েছে। লাদাখের প্রবল ঠান্ডায় চিনা সেনাদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেই দিকে নজর দিয়েছে বেজিং।&nbsp;</strong></p>

শীতকালে থাকার জন্য বেশ তাঁবুতে সৌর প্যানেল হিটার বসানো হয়েছে। লাদাখের প্রবল ঠান্ডায় চিনা সেনাদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেই দিকে নজর দিয়েছে বেজিং। 

<p><strong>চিনাদের এই রণসজ্জার পরেও ভারত আলোচনার মাধ্যমে জটিলতা কাটিয়ে ওঠার বিষয়ে আশাবাদী। ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রের খবর, প্রয়োজনীয় আলোচনার মধ্যেই দিয়েই সীমান্ত উত্তাপ কমানোর যাবতীয় ব্যবস্থা করা হচ্ছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

চিনাদের এই রণসজ্জার পরেও ভারত আলোচনার মাধ্যমে জটিলতা কাটিয়ে ওঠার বিষয়ে আশাবাদী। ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রের খবর, প্রয়োজনীয় আলোচনার মধ্যেই দিয়েই সীমান্ত উত্তাপ কমানোর যাবতীয় ব্যবস্থা করা হচ্ছে। 
 

<p><strong>ভারতীয় সেনাবাহিনীর কর্তারা বলছেন প্রথমে প্যাংগংএর উত্তর প্রান্তে ফিঙ্গার ৪ এলাকা খালি করার ওপর জোর দেওয়া হবে চিনা সেনাকে। বর্তমানে এই এলাকায় ঘাঁটি তৈরি করে বসে রয়েছে চিনের পিপিলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা। আগে ফিঙ্গার ৮ এ ফিরে যেতে হবে চিনা সেনাকে। ভারত প্রথম থেকেই ২০২০ এর এপ্রিলের আগের অবস্থায় ফিরে যাওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

ভারতীয় সেনাবাহিনীর কর্তারা বলছেন প্রথমে প্যাংগংএর উত্তর প্রান্তে ফিঙ্গার ৪ এলাকা খালি করার ওপর জোর দেওয়া হবে চিনা সেনাকে। বর্তমানে এই এলাকায় ঘাঁটি তৈরি করে বসে রয়েছে চিনের পিপিলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা। আগে ফিঙ্গার ৮ এ ফিরে যেতে হবে চিনা সেনাকে। ভারত প্রথম থেকেই ২০২০ এর এপ্রিলের আগের অবস্থায় ফিরে যাওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে। 
 

<p><strong>&nbsp;ভারতীয় সেনা বাহিনী সূত্রের খবর গোগরা হটস্প্রিং এলাকায় চিনা সেনা অবস্থান করছে। পাশাপাশি দোপসাং উপত্যকাতেও চিনা সেনা অবস্থান করেছে। ১৫ অক্টোবর থেকে ওই এলাকায় প্রবল তুষারপাত শুরু হয়ে যায়।&nbsp;</strong></p>

 ভারতীয় সেনা বাহিনী সূত্রের খবর গোগরা হটস্প্রিং এলাকায় চিনা সেনা অবস্থান করছে। পাশাপাশি দোপসাং উপত্যকাতেও চিনা সেনা অবস্থান করেছে। ১৫ অক্টোবর থেকে ওই এলাকায় প্রবল তুষারপাত শুরু হয়ে যায়। 

<p><strong>ওই সময় চিন ভারতের ওপর হামলা চালাতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর সেইকারণে সংলগ্ন সেনা ঘাঁটিগুলিকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।&nbsp;</strong></p>

ওই সময় চিন ভারতের ওপর হামলা চালাতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর সেইকারণে সংলগ্ন সেনা ঘাঁটিগুলিকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। 

<p><strong>এই অবস্থাতেই নভেম্বর মাসে ব্রিকস শীর্ষ সম্মেনলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুখোমুখি হবেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং-এর। বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে সেই সময় লাদাখ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে।&nbsp;</strong></p>

এই অবস্থাতেই নভেম্বর মাসে ব্রিকস শীর্ষ সম্মেনলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুখোমুখি হবেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং-এর। বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে সেই সময় লাদাখ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে। 

loader