19

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রকাশিত এই তালিকার শীর্ষে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনা মহামারী সঙ্কটের মোকাবিলা এবং এর জন্য ভ্যাকসিনের ব্যবস্থাপনা, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির শক্তিশালী অবস্থান প্রধানমন্ত্রী মোদীর ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করেছে। এছাড়াও, সম্প্রতি, যুদ্ধ-বিধ্বস্ত ইউক্রেন থেকে ২২০০০-এরও বেশি ভারতীয় তরুণ তরুণীদের দেশে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী মোদী দেশের প্রধান নেতার ভূমিকায় দাঁড়িয়েছেন বলে জানানো হয়েছে।
 

29

ক্ষমতাবানদের তালিকায় প্রধানমন্ত্রী মোদির পর দুই নম্বরে রয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দলে ও সরকারে তাঁর প্রভাবের বিচারেই তিনি দুই নম্বর। তিন-চার নম্বরেও রয়েছেন সংঘ পরিবারের সদস্যরাই। তিনে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত এবং চারে বিজেপির জাতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। বাংলার ভোটে ধাক্কা খেলেও, সম্প্রতি তাঁর নেতৃত্বে অন্যান্য রাজ্যের বিধানসভা ভোটে ভাল ফল করেছে বিজেপি।
 

39

তালিকায় প্রথম শিল্পপতি হলেন ভারতের সবথেকে ধনী ব্যক্তি মুকেশ অম্বানি। ফোর্বস পত্রিকার সূত্র অনুসারে তাঁর সম্পদের পরিমাণ বর্তমানে ৯৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তিনি রয়েছেন তালিকায় পঞ্চম স্থানে। এমনকী তাঁর স্ত্রী নীতা অম্বানিও,  প্রথম ৫০ জন শক্তিশালী ভারতীয়র ক্লাবে প্রবেশ করেছেন।
 

49

এই তালিকায় সবথেকে আকর্ষণীয় উত্থান ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। সদ্য সমাপ্ত উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে জয়জয়কারের জোরে তিনি ১৩তম স্থান থেকে উঠে এসেছেন ষষ্ঠ স্থানে। অর্থাৎ সংঘ পরিবারের পঞ্চম শক্তিশালী ব্যক্তি এখন তিনি। 

59

সাত নম্বরে রয়েছেন ভারতের আরেক শীর্ষস্থানীয় শিল্পপতি গৌতম আদানি। অতি দ্রুত আদানি গোষ্ঠীকে ভারতের তৃতীয় শিল্পগোষ্ঠী হিসাবে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের শিল্পগোষ্ঠীতে পরিণত করেছেন তিনি। আর আট নম্বরে রয়েছেন, 'ভারতীয় জেমস বন্ড' নামে পরিচিত, দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। চিন ও পাকিস্তান নিয়ে দেশের নীতি তৈরি করেছেন, মোদী সরকারের এই সবথেকে ক্ষমতাবান সরকারি আধিকারিকই।

69

ভারতের সবথেকে ক্ষমতাশালী ব্যক্তিদের তালিকার শীর্ষস্থানগুলি সংঘ পরিবারের দখলে। তাহলে বিজোপিকে চ্যালেঞ্জ জানাবে কে? বক্তমানে এই নিয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে জোর টক্কর চলছে। বাংলায় সবথেকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁর দলকে দারুণ নির্বাচনী সাফল্য এনে দিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী। এই কারণে ২২তম স্থান থেকে শক্তিশালী ভারতীয়দের তালিকায় ১১ নম্বরে উঠে এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে, বিরোধী কোণে সবচেয়ে উজ্জ্বল নক্ষত্র, আম আদমি পার্টি প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। দিল্লির পর পঞ্জাবেও দলকে সফলভাবে প্রসারিত করেছেন তিনি। গোয়া-সহ আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যেও আপের উপস্থিতি টের পাওয়া যাচ্ছে। শক্তিশালি ভারতীয়দের প্রথম ১০-এ তাই কেজরিওয়ালই একমাত্র বিরোধী মুখ, আছেন ৯ নম্বরে। 
 

79

এছাড়া বিরোধী নেতাদের মধ্যে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী তথা শিবসেনা নেতা উদ্ধব ঠাকরে আছেন ১৬তম স্থানে, এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ার ১৭তম। যোগীর ধারে কাছে পৌঁছতে না পারলেও, উত্তরপ্রদেশে প্রধান বিরোধী দল হিসাবে উঠে এসেছে সমাজবাদী পার্টি। অখিলেশ যাদবও তালিকায় ৭০তম স্থান থেকে উঠে এসেছেন ৫৬তম স্থানে। আর বসপা প্রধান মায়াবতী চলে গিয়েছেন ১০০ জনের তালিকার প্রায় বাইরে, আছেন ৯৫তম স্থানে।
 

89

এবার আসা যাক গান্ধী পরিবারের কথায়। এখনও পরিবারে মা সনিয়া গান্ধীই সবথেকে শক্তিশালী। তিনি আছেন ২৭তম স্থানে। উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে তাঁর প্রচেষ্টার জন্য সান্ত্বনা পুরস্কার পেয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র, আছেন ৭৫তম স্থানে। আর রাহুল গান্ধী ঝুলে আছেন, প্রায় না এদিকে, না ওদিকে ৫১তম স্থানে। 
 

99

প্রধান বিচারপতি এন ভি রমনা আছেন দ্বাদশ স্থানে। সুপ্রিম কোর্টের আরেক বিচারপতি, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় শীর্ষ ২০-তে উঠে এসেছেন। প্রথম ৫০ জনের মধ্যে রয়েছেন, অলিম্পিক স্বর্ণপদক বিজয়ী নীরজ চোপড়াও। তাঁর স্থান ৫০তম। ভারতীয় ক্রিকেট কিংবা বলিউড তারকারা কেউই ৫০ জনের তালিকায় 

Read more Articles on