হাওয়ায় করোনার জীবাণু ভেসে বেড়াতে পারে ১৪ মিনিট, বাতাসেও রয়েছে সংক্রমণে আশঙ্কা

First Published 30, Jul 2020, 6:17 PM

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে আরও আশঙ্কার কথা শোনালেন বিশেষজ্ঞরা। মে মাসে প্রকাশিত একটি গবেষণা পত্রে বলা হয়েছে বাতাসে করোনার জীবাণু প্রায় ১৪ মিনিট স্থায়ী হতে পারে। কথা বলার সময় বা শ্বাস প্রশ্বাসের সময় কোনও মানুষের মুখ থেকে করোনার যে জীবাণু বার হয় তা বাতাসের মাধ্যমে অন্য কোনও ব্যক্তিকে সংক্রমিত করতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও জানিয়ে  বাতাসের মাধ্যমে করোনাভাইরাসের জীবানু ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে সবথেকে বেশি।  তাই  মাস্কের ব্যবহারের ওপর বিশেষভাবে জোর দেওয়া হয়েছে। 
 

<p style="text-align: justify;"><strong>করোনাভাইরাস কী বাতাসের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে পারে- এই প্রশ্নেই উত্তর খোঁজে পেয়েছেন এক দল বিজ্ঞানী। তাঁদের দাবি বাতাসের মাধ্যমে করোনার   জীবাণু ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে সব থেকে বেশি। </strong></p>

করোনাভাইরাস কী বাতাসের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে পারে- এই প্রশ্নেই উত্তর খোঁজে পেয়েছেন এক দল বিজ্ঞানী। তাঁদের দাবি বাতাসের মাধ্যমে করোনার   জীবাণু ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে সব থেকে বেশি। 

<p><strong>বিজ্ঞানীদের দাবি বাতাসে করোনাভাইরাসের জাবীণু প্রায় ১৪ মিনিট স্থায়ী হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে নির্দিষ্ট কিছু শর্ত রয়েছে। </strong></p>

বিজ্ঞানীদের দাবি বাতাসে করোনাভাইরাসের জাবীণু প্রায় ১৪ মিনিট স্থায়ী হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে নির্দিষ্ট কিছু শর্ত রয়েছে। 

<p><strong>কোনও ঘরে অনেক মানুষ জড়ো হলে, রেস্তোঁরা, নাইটক্লাব বা বদ্ধ জায়গায় কোনও মজলিস বা অনুষ্ঠানে এই আশঙ্কা সবথেকে বেশি। তাই এই সব এলাকায় নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি। </strong><br />
 </p>

কোনও ঘরে অনেক মানুষ জড়ো হলে, রেস্তোঁরা, নাইটক্লাব বা বদ্ধ জায়গায় কোনও মজলিস বা অনুষ্ঠানে এই আশঙ্কা সবথেকে বেশি। তাই এই সব এলাকায় নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি। 
 

<p><strong> বিজ্ঞানীদের মতে বদ্ধ ও ভিড় এলাায় নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় ও করোনা স্বাস্থ্য বিধি মেনে না চলতে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যেতেই পারে। </strong></p>

<p> </p>

 বিজ্ঞানীদের মতে বদ্ধ ও ভিড় এলাায় নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় ও করোনা স্বাস্থ্য বিধি মেনে না চলতে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যেতেই পারে। 

 

<p><strong>৫. বিশেষজ্ঞদের মতে বদ্ধ এলেকা, যেখানে বায়ু চলাচলে পরিসর কম সেখানে করোনার জীবাণু স্বাভাবিকের থেকে বেশি সময় দীর্ঘায়িত হতে পারে। আর সেই জীবাণু বাতাসেই অবস্থান করে। </strong><br />
 </p>

৫. বিশেষজ্ঞদের মতে বদ্ধ এলেকা, যেখানে বায়ু চলাচলে পরিসর কম সেখানে করোনার জীবাণু স্বাভাবিকের থেকে বেশি সময় দীর্ঘায়িত হতে পারে। আর সেই জীবাণু বাতাসেই অবস্থান করে। 
 

<p><strong> মে মাসে প্রকাশিত এক গবেষণা পত্রে দেখা গেছে কথা বলা বা হাঁচি কাশির মাধ্যমে যে জীবাণু মানুষের শরীরের বাইরে বেরিয়ে আসা তা একইভাবে ৮-১৪ মিনিট বদ্ধ পরিবেশেব বাতাসে থাকতে পারে।</strong></p>

 মে মাসে প্রকাশিত এক গবেষণা পত্রে দেখা গেছে কথা বলা বা হাঁচি কাশির মাধ্যমে যে জীবাণু মানুষের শরীরের বাইরে বেরিয়ে আসা তা একইভাবে ৮-১৪ মিনিট বদ্ধ পরিবেশেব বাতাসে থাকতে পারে।

<p><strong> বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা আগেই জানিয়েছিল বাতাসের মাধ্যমে করোনার জীবাণু ছড়য়ে পড়ার আশঙ্কা বেশি রয়েছে। তাই তাঁরা মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন। </strong><br />
 </p>

 বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা আগেই জানিয়েছিল বাতাসের মাধ্যমে করোনার জীবাণু ছড়য়ে পড়ার আশঙ্কা বেশি রয়েছে। তাই তাঁরা মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন। 
 

<p style="text-align: justify;"><strong>রোগীর চিকিৎসার সময় চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদেরও মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কাঁর রোগীর শ্বাসলন খোলা পারা বা ভেন্টিলেটরে প্রবেশ করানোর সময় সংক্রমণের আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা। </strong></p>

রোগীর চিকিৎসার সময় চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদেরও মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কাঁর রোগীর শ্বাসলন খোলা পারা বা ভেন্টিলেটরে প্রবেশ করানোর সময় সংক্রমণের আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা। 

<p style="text-align: justify;"><strong>তবে ভাইরাসগুলি যদি তাজা বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে তাহলে সংক্রমণের আশঙ্কা অনেকটাই কম থাকে। </strong><br />
 </p>

তবে ভাইরাসগুলি যদি তাজা বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে তাহলে সংক্রমণের আশঙ্কা অনেকটাই কম থাকে। 
 

<p><strong> তাই বন্ধ ঘরের তুলনায় যাঁরা বাইরে বের হন তাঁরা অনেকটাই বেশি নিরাপদে থাকতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা অত্যান্ত জরুরি।</strong></p>

 তাই বন্ধ ঘরের তুলনায় যাঁরা বাইরে বের হন তাঁরা অনেকটাই বেশি নিরাপদে থাকতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা অত্যান্ত জরুরি।

loader