ডোকলামের পর থেকেই ঘুঁটি সাজাচ্ছিল চিন, লাদাখ উত্তাপের পরই তৈরি হয়েছে একাধিক বায়ু সেনা ঘাঁটি

First Published 22, Sep 2020, 3:46 PM

২০১৭ সালে সিকিম সীমান্তে ডোকলামে ভারত ও চিনের সঙ্গে উত্তাপ বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে সেখানে চিনাদের তুলনায় কিছুটা হলেও এগিয়ে ছিল ভারত। টানা ৭৩ দিন দুই দেশের সেনা একেঅপরের দিকে তাক করে বসেছিলন। কিন্তু ডোকলাম পরবর্তীকালে চিন ভারতের থেকে এগিয়ে থাকার জন্য বায়ু সেনার দিকে আরও জোর দিয়েছে। একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে গত তিন বছরে চিন এয়ার বেস, এয়ার ডিফেন্সে আর হেলিকপ্টারের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ করে নিয়েছে। মে মাসে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় উত্তাপ বৃদ্ধি পাওয়ার পরই চিন এই এলাকায় চারটি হেলিপোর্ট তৈরি করেছে চিন।  
 

<p><strong>ভারতীয় ইন্টেলিজেন্স সূত্রে পাওয়া খবর ও বেশ কয়েকটি উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে চিন সীমান্তের বেশ কয়েকটি জায়গায় রীতিমত শক্তি বাড়িয়েছে। লাদাখ সীমান্ত এলাকায় বেশ কয়েকটি এলাকায় এখনও চলছে নির্মাণ কাজ। চিনের যে সামরিক তৎপরতা দেখা যাচ্ছে তা দীর্ঘমেয়াদী বলেই মনে করা হচ্ছ।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

ভারতীয় ইন্টেলিজেন্স সূত্রে পাওয়া খবর ও বেশ কয়েকটি উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে চিন সীমান্তের বেশ কয়েকটি জায়গায় রীতিমত শক্তি বাড়িয়েছে। লাদাখ সীমান্ত এলাকায় বেশ কয়েকটি এলাকায় এখনও চলছে নির্মাণ কাজ। চিনের যে সামরিক তৎপরতা দেখা যাচ্ছে তা দীর্ঘমেয়াদী বলেই মনে করা হচ্ছ। 
 

<p><strong>একটি সূত্র বলছে চিন ভারতীয় সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় প্রায় ১৩টি নতুন সামরিক নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। যার মধ্যে রয়েছে তিনটি বিমান ঘাঁটি, পাঁচটি অস্থায়ী বিমান প্রতিরক্ষা অবস্থান আর পাঁচটি হেলিপোর্ট।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

একটি সূত্র বলছে চিন ভারতীয় সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় প্রায় ১৩টি নতুন সামরিক নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। যার মধ্যে রয়েছে তিনটি বিমান ঘাঁটি, পাঁচটি অস্থায়ী বিমান প্রতিরক্ষা অবস্থান আর পাঁচটি হেলিপোর্ট। 
 

<p><strong>নতুন হেলিপোর্টগুলির মধ্যে চারটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে মে মাসে লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ার পর।&nbsp;</strong></p>

নতুন হেলিপোর্টগুলির মধ্যে চারটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে মে মাসে লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ার পর। 

<p><strong>লাদাখ সীমান্তের পাশাপাশি দক্ষিণ চিন সাগরেও তৎপরতা বাড়িয়েছে চিন। সেখানেও বায়ু সেনার ঘাঁটি তৈরির ও নৌসেনার অবস্থার সুবিধের জন্য প্রবাল অ্যাটসের চার পাশে জমি তৈরি করছে।&nbsp;</strong></p>

লাদাখ সীমান্তের পাশাপাশি দক্ষিণ চিন সাগরেও তৎপরতা বাড়িয়েছে চিন। সেখানেও বায়ু সেনার ঘাঁটি তৈরির ও নৌসেনার অবস্থার সুবিধের জন্য প্রবাল অ্যাটসের চার পাশে জমি তৈরি করছে। 

<p><strong>দক্ষিণ চিন সাগরে বেজিং-এর আগ্রাসন বিশ্বের অধিকাংশ দেশগুলি ভালোভাবে নেয়নি। কারণ এই এলাকায় আমেরিকা থেকে শুরু করে ভারতের কাছেও গুরুত্বপূর্ণ। অনেক দেশই চিনা আগ্রাসনে বাধা দিয়েছিল। কিন্তু নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়েছে বেজিং।&nbsp;</strong></p>

দক্ষিণ চিন সাগরে বেজিং-এর আগ্রাসন বিশ্বের অধিকাংশ দেশগুলি ভালোভাবে নেয়নি। কারণ এই এলাকায় আমেরিকা থেকে শুরু করে ভারতের কাছেও গুরুত্বপূর্ণ। অনেক দেশই চিনা আগ্রাসনে বাধা দিয়েছিল। কিন্তু নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়েছে বেজিং। 

<p><strong>মে মাসে পাওয়া এই উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে তিব্বতের নাগারি গুণসা বিমান বন্দরে শুরু হয়েছে বিশাল নির্মাণকাজ। এই এলাকাটি প্যাংগং থেকে মাত্র ২০০ কিলোমিটার দূরে। আর এই ঘাঁটিতে রাখা রয়েছে জে-১১, জে-১৬ এর মত চিনা যুদ্ধ বিমানগুলি।&nbsp;</strong></p>

মে মাসে পাওয়া এই উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে তিব্বতের নাগারি গুণসা বিমান বন্দরে শুরু হয়েছে বিশাল নির্মাণকাজ। এই এলাকাটি প্যাংগং থেকে মাত্র ২০০ কিলোমিটার দূরে। আর এই ঘাঁটিতে রাখা রয়েছে জে-১১, জে-১৬ এর মত চিনা যুদ্ধ বিমানগুলি। 

<p><strong>&nbsp;সীমান্ত উত্তাপ নিয়ে চিন এক দিকে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে তলতলে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও উদ্বেগ বাড়ছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

 সীমান্ত উত্তাপ নিয়ে চিন এক দিকে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে তলতলে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও উদ্বেগ বাড়ছে। 
 

<p><strong>&nbsp;সীমান্ত উত্তাপ নিয়ে চিন এক দিকে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে তলতলে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও উদ্বেগ বাড়ছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

 সীমান্ত উত্তাপ নিয়ে চিন এক দিকে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে তলতলে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও উদ্বেগ বাড়ছে। 
 

loader