নাড্ডার কনভয়ে 'হামলা', বিজেপির প্রতিবাদে ধুন্ধুমার কাণ্ড হাওড়ায়

First Published Dec 10, 2020, 7:15 PM IST

ডায়মন্ড হারবারে বিজেপির কনভয়ে হামলার প্রতিবাদ ঘিরে ধুন্ধুমার কাণ্ড হাওড়ায়। বৃহস্পতিবার হাওড়া ডিএম বাংলা ঘেরাও করে বিজেপি। বাধা পেয়ে পুলিশ-বিজেপি কর্মী ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ঘটনার জেরে জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী। জেলাশাসকের বাংলোর সামনে অবরোধের তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ঘটনার জেরে চরম উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়।

<p>ডায়মন্ড হারবারে বিজেপির কনভয়ে হামলা। ঘটনার জেরে রাজ্য জুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। প্রতিবাদের আঁচ গিয়ে পড়ে হাওড়া জেলাশাসকের বাংলায়। সেখানে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে যায়।</p>

ডায়মন্ড হারবারে বিজেপির কনভয়ে হামলা। ঘটনার জেরে রাজ্য জুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। প্রতিবাদের আঁচ গিয়ে পড়ে হাওড়া জেলাশাসকের বাংলায়। সেখানে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে যায়।

<p style="text-align: justify;">বৃহস্পতিবার বিকেল চারটে নাগাদ পঞ্চাননতলা বিজেপি অফিস থেকে প্রতিবাদ মিছিল শুরু করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। মিছিল জেলাশাসকের বাংলোর সামনে এলে আটকে দেয় পুলিশ। সেখানেই পুলিশ-বিজেপি কর্মী ধস্তাধস্তি শুরু হয়।</p>

বৃহস্পতিবার বিকেল চারটে নাগাদ পঞ্চাননতলা বিজেপি অফিস থেকে প্রতিবাদ মিছিল শুরু করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। মিছিল জেলাশাসকের বাংলোর সামনে এলে আটকে দেয় পুলিশ। সেখানেই পুলিশ-বিজেপি কর্মী ধস্তাধস্তি শুরু হয়।

<p style="text-align: justify;">হাওড়া জেলাশাসকের বাংলোর সামনে লোহার ব্য়ারিকেড আগে থেকে রাখা ছিল। সেখানে বিজেপি কর্মীদের আটকালে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। কয়েকজন বিজেপি কর্মী ব্যারিকেড টপকে ডিএম বাংলোর সামনে চলে আসে। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকায় আগুন লাগিয়ে দেয়।</p>

হাওড়া জেলাশাসকের বাংলোর সামনে লোহার ব্য়ারিকেড আগে থেকে রাখা ছিল। সেখানে বিজেপি কর্মীদের আটকালে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। কয়েকজন বিজেপি কর্মী ব্যারিকেড টপকে ডিএম বাংলোর সামনে চলে আসে। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকায় আগুন লাগিয়ে দেয়।

<p style="text-align: justify;">এরই মধ্যে কয়েকজন বিজেপি কর্মী ডিএম বাংলোর গেট টপকে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে। পুলিশ বাধা দিলে শুকরু হয় বচসা। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। মহিলা পুলিশকর্মী না থাকায় বিজেপির মহিলা সমর্থকদেরকে মারধরের অভিযোগ ওঠে।</p>

এরই মধ্যে কয়েকজন বিজেপি কর্মী ডিএম বাংলোর গেট টপকে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে। পুলিশ বাধা দিলে শুকরু হয় বচসা। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। মহিলা পুলিশকর্মী না থাকায় বিজেপির মহিলা সমর্থকদেরকে মারধরের অভিযোগ ওঠে।

<p style="text-align: justify;">পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির জেরে কয়েকজন মহিলা বিজেপি কর্মী জখম হন। তাঁদের হাওড়া জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। এরপরই, ডিএম অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা।</p>

পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির জেরে কয়েকজন মহিলা বিজেপি কর্মী জখম হন। তাঁদের হাওড়া জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। এরপরই, ডিএম অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা।

<p style="text-align: justify;">ডিএম বাংলোর সামনে অবরোধের জেরে স্তব্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। পুলিশ-বিক্ষোভকারী মধ্যে ধস্তাধস্তি প্রায় ঘণ্টাখানেক চলে। ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিজেপির হাওড়ার সদর সভাপতি সুরজিৎ সাহা।</p>

ডিএম বাংলোর সামনে অবরোধের জেরে স্তব্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। পুলিশ-বিক্ষোভকারী মধ্যে ধস্তাধস্তি প্রায় ঘণ্টাখানেক চলে। ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিজেপির হাওড়ার সদর সভাপতি সুরজিৎ সাহা।

Today's Poll

একসঙ্গে কতজন প্লেয়ারের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন