সুস্থ আছেন মুকুল রায়, হাসপাতালে দেখতে গেলেন দিলীপ ঘোষ

First Published 20, Nov 2020, 2:31 PM

অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ আছেন মুকুল রায়। গলব্লালাডে অপারেশন হয়েছে সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি মুকুল রায়ের। বাইপাসের ধারে একটু বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন তিনি। শুক্রবার  তাঁকে দেখতে গেলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর শারীরিক অবস্থার খবর নিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। 


 

<p><br />
অস্ত্রোপচারের পর ভাল আছেন মুকুল রায়। গলব্লালাডে অপারেশন হয়েছে সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি মুকুল রায়ের। শুক্রবার &nbsp;তাঁকে দেখতে গেলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>


অস্ত্রোপচারের পর ভাল আছেন মুকুল রায়। গলব্লালাডে অপারেশন হয়েছে সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি মুকুল রায়ের। শুক্রবার  তাঁকে দেখতে গেলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 
 

<p>উল্লেখ্য, বুধবার আচমকাই ব্যথা শুরু হয় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের। দেরী না করে তাঁকে দ্রুত ভর্তি করানো হয় বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

উল্লেখ্য, বুধবার আচমকাই ব্যথা শুরু হয় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের। দেরী না করে তাঁকে দ্রুত ভর্তি করানো হয় বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। 
 

<p>বৃহস্পতিবার তাঁর অপারেশন করেন চিকিৎসকেরা। হাসপাতাল সূত্রে খবর, অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। ভাল আছেন মুকুল রায়।&nbsp;</p>

বৃহস্পতিবার তাঁর অপারেশন করেন চিকিৎসকেরা। হাসপাতাল সূত্রে খবর, অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। ভাল আছেন মুকুল রায়। 

<p><br />
মুকুল রায়ের অসুস্থার কথা কাউকে জানানো হয়নি। কারণ তাহলে মুকুল রায়কে দেখতে ভীড় করতেন অনুগামীরা। করোনা আবহে তা চাননি মুকুল রায়। সে কারণে তাঁর এ খবরটি গোপন রাখা হয়েছে।&nbsp;</p>


মুকুল রায়ের অসুস্থার কথা কাউকে জানানো হয়নি। কারণ তাহলে মুকুল রায়কে দেখতে ভীড় করতেন অনুগামীরা। করোনা আবহে তা চাননি মুকুল রায়। সে কারণে তাঁর এ খবরটি গোপন রাখা হয়েছে। 

<p>&nbsp;<br />
অপরদিকে, সামনেই বিধানসভা ভোট। এমন সময় বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ নেতার মুকুল রায়ের স্বাস্থ্যের খবর নিতে দিল্লি থেকে বারবার ফোন আসছে। তাঁর শারীরিক অবস্থার খবর নিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

 
অপরদিকে, সামনেই বিধানসভা ভোট। এমন সময় বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ নেতার মুকুল রায়ের স্বাস্থ্যের খবর নিতে দিল্লি থেকে বারবার ফোন আসছে। তাঁর শারীরিক অবস্থার খবর নিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।