স্মার্টফোনের ফুল স্টোরেজ নিয়ে সমস্যা, বাড়িয়ে নিন সহজ উপায়ে

First Published 11, Jun 2020, 2:41 PM

বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সাধারণ একটি সমস্যা হল স্টোরেজের। দৈনন্দিন জীবনে স্মার্টফোনের ব্যবহার যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে, তাতে কম পড়ে যাচ্ছে ফোনের স্টোরেজ ক্যাপাসিটি। ফলে প্রতিনিয়ত ফোনে এলার্ট আসছে স্টোরেজ ফুল এর। এটি একটি বিরক্তিকর পরিস্থিতি। অফিসের করার জন্যও বর্তমান সময়ে ফোন একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বস্তু। এটি না থাকলে প্রায় অচল হয়ে পড়বে সব কাজ। তাই যদি আপনার ফোনের ইন্টারন্যাল স্টোরেজ ফুল থাকে, ফলে ফোন খুব স্লো হয়ে পড়ে। যার ফলে মোবাইলের কার্য ক্ষমতা হ্রাস পায়। জেনে নেওয়া যাক কী ভাবে সহজ উপায় ফোনের স্টোরেজ বাড়াতে পারবেন।

<p>আপনার স্মার্টফোনে যদি অনেক বেশি অ্যাপ থাকে এবং আপনি সেগুলি ব্যবহার না করেন, তবে আপনাকে প্রথমেই সেই কম ব্যবহৃত অ্যাপগুলি আনইনস্টল করতে হবে। এতে ফোনের কিছুটা স্পেশ বাড়বে পাশাপাশি ফোনের পারফরম্যান্সও বাড়বে।</p>

আপনার স্মার্টফোনে যদি অনেক বেশি অ্যাপ থাকে এবং আপনি সেগুলি ব্যবহার না করেন, তবে আপনাকে প্রথমেই সেই কম ব্যবহৃত অ্যাপগুলি আনইনস্টল করতে হবে। এতে ফোনের কিছুটা স্পেশ বাড়বে পাশাপাশি ফোনের পারফরম্যান্সও বাড়বে।

<p>যদি আপনি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহার করেন তবে এর সেটিংসে গিয়ে ক্যাচ ফাইল ক্লিয়ার করুন। এটিও স্টোরেজ বাড়াতে এবং ফোনের কাজ আরও ফাস্ট হতে সাহায্য করবে। আপনাকে প্রতিদিনই এটি করতে হবে, যাতে ফোনটি আরও ফাস্ট কাজ করতে পারে।</p>

যদি আপনি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহার করেন তবে এর সেটিংসে গিয়ে ক্যাচ ফাইল ক্লিয়ার করুন। এটিও স্টোরেজ বাড়াতে এবং ফোনের কাজ আরও ফাস্ট হতে সাহায্য করবে। আপনাকে প্রতিদিনই এটি করতে হবে, যাতে ফোনটি আরও ফাস্ট কাজ করতে পারে।

<p>আপনি যদি প্রতিটি এই স্পেশের কারণে একটি একটি করে ফটো বা ভিডিও ডিলিট করে থাকেন, তবে আপনার সময় নষ্ট হবে বেশি। তাই আপনার ফোনটি ল্যাপটপ অথবা ডেস্কটপের সঙ্গে কানেক্ট করে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলি একসঙ্গে ডিলিট করে দিন। এতে সহজেই ফোনের স্টোরেজ বৃদ্ধি পাবে।</p>

আপনি যদি প্রতিটি এই স্পেশের কারণে একটি একটি করে ফটো বা ভিডিও ডিলিট করে থাকেন, তবে আপনার সময় নষ্ট হবে বেশি। তাই আপনার ফোনটি ল্যাপটপ অথবা ডেস্কটপের সঙ্গে কানেক্ট করে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলি একসঙ্গে ডিলিট করে দিন। এতে সহজেই ফোনের স্টোরেজ বৃদ্ধি পাবে।

<p>ই-মেলের সঙ্গে যুক্ত ফাইলগুলিও আমরা ফোনেই সেভ করে থাকি। তাই এই ফাইলগুলি ডিলিট করেও অনেকটা স্পেস তৈরি করা সম্ভব। ক্লাউড স্টোরেজ ব্যবহার করে আপনি ফোনে আরও বেশি স্পেস তৈরি করতে পারেন।</p>

ই-মেলের সঙ্গে যুক্ত ফাইলগুলিও আমরা ফোনেই সেভ করে থাকি। তাই এই ফাইলগুলি ডিলিট করেও অনেকটা স্পেস তৈরি করা সম্ভব। ক্লাউড স্টোরেজ ব্যবহার করে আপনি ফোনে আরও বেশি স্পেস তৈরি করতে পারেন।

<p>যদি আপনি আইফোন ব্যবহার করেন, তবে আপনি ফোনের সেটিংসে গিয়ে জেনারেল এ ক্লিক করুন এবং তারপরে 'স্টোরেজ এবং আইক্লাউড স্টোরেজটিতে ক্লিক করুন, তারপরে মূল স্টোরেজে যান, এখানে আপনি ফোনের স্টোরেজ এবং তার বিভাগ দেখতে পাবেন, তারপরে আপনি আপনি অতিরিক্ত ফাইলগুলি ডিলিট করে স্পেস তৈরি করতে পারেন।</p>

যদি আপনি আইফোন ব্যবহার করেন, তবে আপনি ফোনের সেটিংসে গিয়ে জেনারেল এ ক্লিক করুন এবং তারপরে 'স্টোরেজ এবং আইক্লাউড স্টোরেজটিতে ক্লিক করুন, তারপরে মূল স্টোরেজে যান, এখানে আপনি ফোনের স্টোরেজ এবং তার বিভাগ দেখতে পাবেন, তারপরে আপনি আপনি অতিরিক্ত ফাইলগুলি ডিলিট করে স্পেস তৈরি করতে পারেন।

<p>ফোনে অতিরিক্ত স্পেস এর প্রয়োজন হলে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারেন। প্রয়জনীয় ও ভারী ফাইলগুলি কার্ডে মুভ করিয়ে নিন। ফলে আপনি ফোনের স্টোরেজে আরও বেশি স্পেস পাবেন।</p>

ফোনে অতিরিক্ত স্পেস এর প্রয়োজন হলে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারেন। প্রয়জনীয় ও ভারী ফাইলগুলি কার্ডে মুভ করিয়ে নিন। ফলে আপনি ফোনের স্টোরেজে আরও বেশি স্পেস পাবেন।

loader