বছরে তৈরি হয়ে করোনা প্রতিষেধকের ২০০ কোটি ডোজ, মার্কিন সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধল সেরাম

First Published 16, Sep 2020, 12:42 PM

ব্রিটেনের পর এবার মার্কিন প্রতিষেধক বিকাশকারী সংস্থার সঙ্গে হাত মেলাল পুনের সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া।  মার্কিন সংস্থা নোভাভ্যাক্স ইনক বুধবার জানিয়েছে সেরামের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তারা করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরি করবে। এক বছরে ২০০ কোটি প্রতিষেধের ডোস তৈরির জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে সেরাম তেমনই জানিয়েছে মার্কিন সংস্থা। তবে আগেই এই সংস্থার সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল সেরামের। তখন বছরে ১০০ কোটি প্রতিষেধক তৈরির কথা হয়েছিল। কিন্তু পরিস্থিতি বিচার করে প্রতিষেধক তৈরির লক্ষ্যমাত্রা আরও বড়ানো হয়েছে বলে জানান হয়েছে সংস্থার পক্ষ থেকে। 

<p><strong>&nbsp;&nbsp;আগেই অক্সফোর্ডের ভ্যাক্সিন কোভিশিল্ড তৈরির জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ভারতের সেরান ইনস্টিটিউট। ইতিমধ্যেই সেই প্রতিষেধকের ট্রায়াল রানও শুরু হয়েছে।&nbsp;</strong></p>

  আগেই অক্সফোর্ডের ভ্যাক্সিন কোভিশিল্ড তৈরির জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ভারতের সেরান ইনস্টিটিউট। ইতিমধ্যেই সেই প্রতিষেধকের ট্রায়াল রানও শুরু হয়েছে। 

<p><strong>এবার পুনের সেরাম চুক্তিবদ্ধ হয়েছে নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে। ভারতসহ স্বল্প ও মধ্যম আয়ের গুলির জন্য প্রতিষেধক তৈরি করবে।&nbsp;</strong></p>

এবার পুনের সেরাম চুক্তিবদ্ধ হয়েছে নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে। ভারতসহ স্বল্প ও মধ্যম আয়ের গুলির জন্য প্রতিষেধক তৈরি করবে। 

<p><strong>বর্ধিত চুক্তি অনুযায়ী সেরাম ইনস্টিটিউট এনভিএক্স কোভি-২৩৭৩, নোভাভ্যাক্স কোডিভ ১৯ ভ্য়াক্সিন প্রার্থীদের জন্য অ্যান্টিজেন উপাদনটিও তৈরি করবে।&nbsp;</strong><br />
<strong>&nbsp;</strong></p>

বর্ধিত চুক্তি অনুযায়ী সেরাম ইনস্টিটিউট এনভিএক্স কোভি-২৩৭৩, নোভাভ্যাক্স কোডিভ ১৯ ভ্য়াক্সিন প্রার্থীদের জন্য অ্যান্টিজেন উপাদনটিও তৈরি করবে। 
 

<p><strong>&nbsp;মার্কিন সংস্থার পক্ষ থেকে জানান হয়েছে প্রতিষেধকটি সঠিকভাবে সরবরাহের জন্যই নতুনভাবে সেরামের সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে। গোটা বিশ্বের মানুষের কাছে দ্রুত প্রতিষেধক পৌঁছে দেওয়া যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেছে নোভাভ্যাক্স।&nbsp;</strong></p>

 মার্কিন সংস্থার পক্ষ থেকে জানান হয়েছে প্রতিষেধকটি সঠিকভাবে সরবরাহের জন্যই নতুনভাবে সেরামের সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে। গোটা বিশ্বের মানুষের কাছে দ্রুত প্রতিষেধক পৌঁছে দেওয়া যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেছে নোভাভ্যাক্স। 

<p><strong>নোভাভ্যাক্সের প্রতিষেধকটি বর্তমানে পরীক্ষা পর্যায়ে রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষার সমীক্ষায় দেখা গেছে এটি অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম। তৃতীয় পর্বের পক্ষা শুরু করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।&nbsp;</strong></p>

নোভাভ্যাক্সের প্রতিষেধকটি বর্তমানে পরীক্ষা পর্যায়ে রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষার সমীক্ষায় দেখা গেছে এটি অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম। তৃতীয় পর্বের পক্ষা শুরু করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। 

<p><strong>২০২১ সালের শুরুতেই প্রতিষেধক সাধারণের ব্যাবহারের জন্য বাজারজাত করা যাবে বলেই আশা করছে সংস্থাটি। পাশাপাশি প্রথম দিকেই ৬০ মিনিয়ন প্রতিষেধক তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ব্রিটেনে সরবরাহের জন্য।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

২০২১ সালের শুরুতেই প্রতিষেধক সাধারণের ব্যাবহারের জন্য বাজারজাত করা যাবে বলেই আশা করছে সংস্থাটি। পাশাপাশি প্রথম দিকেই ৬০ মিনিয়ন প্রতিষেধক তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ব্রিটেনে সরবরাহের জন্য। 
 

<p><strong>সংস্থাটি আগামী বছর গোড়ার দিকে ১০০ মিলিয়ন ডোস তৈরি করতে চায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য। পাশাপাশি কানাডা আর জাপানেও প্রতিষেধক পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।&nbsp;</strong></p>

সংস্থাটি আগামী বছর গোড়ার দিকে ১০০ মিলিয়ন ডোস তৈরি করতে চায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য। পাশাপাশি কানাডা আর জাপানেও প্রতিষেধক পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। 

<p><strong>বিশ্বের বৃহত্তম প্রতিষেধক প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম। তাদের তৈরি প্রতিষেধক ব্যবহার করে বিশ্বের প্রায় ৬৫ শতাংশ শিশু। সেরামের তৈরি প্রতিষেধক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দ্বারা স্বীকৃত। বিশ্বের ১৭০টি দেশই সেরামের প্রতিষেধক ব্যবহার করে।&nbsp;</strong></p>

<p>&nbsp;</p>

বিশ্বের বৃহত্তম প্রতিষেধক প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম। তাদের তৈরি প্রতিষেধক ব্যবহার করে বিশ্বের প্রায় ৬৫ শতাংশ শিশু। সেরামের তৈরি প্রতিষেধক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দ্বারা স্বীকৃত। বিশ্বের ১৭০টি দেশই সেরামের প্রতিষেধক ব্যবহার করে। 

 

<p><strong>সেরামের সঙ্গে নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেজিক্যাল রিসার্চ। দুটি সংস্থা যৌত উদ্যোগে গ্লাইকোপ্রোটিন সাবুনিট ন্যানো পার্টিকেল অ্যাডভান্সভেন্ট প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল বিকাশের জন্যই অংশীদার হয়েছে।&nbsp;</strong></p>

সেরামের সঙ্গে নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেজিক্যাল রিসার্চ। দুটি সংস্থা যৌত উদ্যোগে গ্লাইকোপ্রোটিন সাবুনিট ন্যানো পার্টিকেল অ্যাডভান্সভেন্ট প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল বিকাশের জন্যই অংশীদার হয়েছে। 

loader