শোরগোল ছাড়াই খুঁটি পুজো হল পুরুলিয়া সরবড়ি সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির

First Published 18, Sep 2020, 3:46 PM

করোনা থাবা বসিয়েছে এবছরের দুর্গাপুজোয়। তাই কোনও রকম শোরগোল ছাড়াই দুর্গাপুজোর সূচনা করলেন পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি। সামাজিক রীতি মেনে খুঁটি পুজোর মাধ্য়মে দুর্গাপুজোর সূচনা হয়। এবছর পুজোর মণ্ডপ জুড়ে থাকছে করোনা প্রকোপ ও তার থেকে সচেতনতার ছবি। 

<p>করোনা আবহে শোরগোল না থাকলেও মা আসছেন। রাজ্যের বিভিন্ন ক্লাবগুলিতে ইতিমধ্যেই খুঁটি পুজো শুরু হয়ে গেছে। খুঁটি হয়েছে জেলার বিভিন্ন রাজবাড়ি গুলিতে। বুধবার মহালয়ার দিন পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরির খুঁটি পুজো হল।</p>

করোনা আবহে শোরগোল না থাকলেও মা আসছেন। রাজ্যের বিভিন্ন ক্লাবগুলিতে ইতিমধ্যেই খুঁটি পুজো শুরু হয়ে গেছে। খুঁটি হয়েছে জেলার বিভিন্ন রাজবাড়ি গুলিতে। বুধবার মহালয়ার দিন পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরির খুঁটি পুজো হল।

<p>পুরুলিয়ার নিতুড়িয়া থানার সড়বড়ি সর্বজনীন দুর্গোৎসব এবার ১৭তম বছরে পা দিয়েছে। এবছর করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পুজোর বাজেটে কাটছাঁট করা হয়েছে। এবছরের বাজেট মাত্র ৯ লক্ষ টাকা। গত বছর এর চেয়ে অনেকটাই বেশি ছিল।</p>

পুরুলিয়ার নিতুড়িয়া থানার সড়বড়ি সর্বজনীন দুর্গোৎসব এবার ১৭তম বছরে পা দিয়েছে। এবছর করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পুজোর বাজেটে কাটছাঁট করা হয়েছে। এবছরের বাজেট মাত্র ৯ লক্ষ টাকা। গত বছর এর চেয়ে অনেকটাই বেশি ছিল।

<p>খুঁটি পুজোর উদ্বোধনে বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি জানান, ''পুজো শুরু থেকে শেষ দিন পর্যন্ত পুজোর জন্য করোনা বিধি সমস্ত মানা হবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টির উপরও বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। প্রতি বছর কলকাতা, বম্বে থেকে শিল্পীরা এসে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করত। কিন্তু এবছর সেরকম ধরনের কোনও অনুষ্ঠান হবে না''।<br />
&nbsp;</p>

খুঁটি পুজোর উদ্বোধনে বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি জানান, ''পুজো শুরু থেকে শেষ দিন পর্যন্ত পুজোর জন্য করোনা বিধি সমস্ত মানা হবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টির উপরও বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। প্রতি বছর কলকাতা, বম্বে থেকে শিল্পীরা এসে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করত। কিন্তু এবছর সেরকম ধরনের কোনও অনুষ্ঠান হবে না''।
 

<p>এবছরের দুর্গাপুজোয় করোনা সচেতনতার উপর বিশেষ জোর দিয়েছেন উদ্যোক্তারা। পুজোর মণ্ডপ জুড়ে থাকবে করোনার প্রকোপ এবং তার থেকে বাঁচার জন্য সচেতনতা। পুজোর সময় করোনা সুরক্ষা মেনে ভিড় বা জমায়েত নিয়ন্ত্রণ করবেন পুজো উদ্য়োক্তারা।</p>

এবছরের দুর্গাপুজোয় করোনা সচেতনতার উপর বিশেষ জোর দিয়েছেন উদ্যোক্তারা। পুজোর মণ্ডপ জুড়ে থাকবে করোনার প্রকোপ এবং তার থেকে বাঁচার জন্য সচেতনতা। পুজোর সময় করোনা সুরক্ষা মেনে ভিড় বা জমায়েত নিয়ন্ত্রণ করবেন পুজো উদ্য়োক্তারা।

<p>খুঁটি পুজোর অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে মাস্ক বিলি করা হয়। পুজোর আগে থেকেই করোনা সচেতনতা বৃদ্ধিতে এই মাস্ক বিশেষ প্রয়োজন হবে বলে জানান বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি। বয়স্ক মানুষদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা দুর্গা পুজোর মহাপ্রসাদ তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দেবেন উদ্যোক্তারা। &nbsp;&nbsp;&nbsp; &nbsp;</p>

খুঁটি পুজোর অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে মাস্ক বিলি করা হয়। পুজোর আগে থেকেই করোনা সচেতনতা বৃদ্ধিতে এই মাস্ক বিশেষ প্রয়োজন হবে বলে জানান বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি। বয়স্ক মানুষদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা দুর্গা পুজোর মহাপ্রসাদ তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দেবেন উদ্যোক্তারা।      

loader