হাতিয়ার সেই দাঁড়িভিটকাণ্ড, ভোটের মুখে শহিদবেদির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন বিজেপি-এর

First Published 21, Sep 2020, 11:55 PM


সিবিআই তদন্তের আশায় এখন নিহতদের দেহ পুঁতে রেখেছেন পরিবারের লোকেরা। বিধানসভা ভোটের আগে ফের দাঁড়িভিটকাণ্ডকে হাতিয়ার করে পথে নামছে বিজেপি। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাঁড়িভিট হাইস্কুল চত্বরে রবিবার নিহত দুই ছাত্রের স্মরণসভায় যোগ দিল দলের জেলা নেতৃত্ব। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হল শহিদ বেদিরও।
 

<p>দেখতে দেখতে দু বছর পার। কার নির্দেশে দাঁড়িভিট হাইস্কুলের ছাত্র ও অভিভাবকদের গুলি চালিয়েছিল পুলিশ? সেই প্রশ্নে মীমাংসা হল না আজও। শাস্তি পেলেন না অভিযুক্ত পুলিশকর্মীরাও।<br />
&nbsp;</p>

দেখতে দেখতে দু বছর পার। কার নির্দেশে দাঁড়িভিট হাইস্কুলের ছাত্র ও অভিভাবকদের গুলি চালিয়েছিল পুলিশ? সেই প্রশ্নে মীমাংসা হল না আজও। শাস্তি পেলেন না অভিযুক্ত পুলিশকর্মীরাও।
 

<p>নিহত দুই ছাত্রের পরিবার তো বটেই, সিবিআই তদন্তের&nbsp;দাবিতে দীর্ঘদিন আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছে বিজেপি। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। খাতায়-কলম অবশ্য দাঁড়িভিটকাণ্ডে তদন্ত করছে সিআইডি। কিন্তু দোষীরা কবে শনাক্ত করা যাবে? তাঁদের আদৌও শাস্তি হবে তো? উত্তর জানা নেই কারও।<br />
&nbsp;</p>

নিহত দুই ছাত্রের পরিবার তো বটেই, সিবিআই তদন্তের দাবিতে দীর্ঘদিন আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছে বিজেপি। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। খাতায়-কলম অবশ্য দাঁড়িভিটকাণ্ডে তদন্ত করছে সিআইডি। কিন্তু দোষীরা কবে শনাক্ত করা যাবে? তাঁদের আদৌও শাস্তি হবে তো? উত্তর জানা নেই কারও।
 

<p>যেদিন গুলি চলেছিল দাঁড়িভিট হাইস্কুলে, সেই ২০ সেপ্টেম্বর দিনটিকে প্রতিবছরই ভাষা শহিদ দিবস হিসেবে পালন করেন নিহতদের পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা। রবিবার সেই অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিজেপি-এর উত্তর দিনাজপুর জেলার নেতারা।<br />
&nbsp;</p>

যেদিন গুলি চলেছিল দাঁড়িভিট হাইস্কুলে, সেই ২০ সেপ্টেম্বর দিনটিকে প্রতিবছরই ভাষা শহিদ দিবস হিসেবে পালন করেন নিহতদের পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা। রবিবার সেই অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিজেপি-এর উত্তর দিনাজপুর জেলার নেতারা।
 

<p>স্রেফ স্মরণসভায় যোগ দেওয়াই নয়, নিহত দুই ছাত্রের স্মরণে এলাকায় শহিদ বেদির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। বিধানসভা ভোটে এই ইস্যুতে আন্দোলন কি জিইয়ে রাখতে চাইছে গেরুয়াশিবির? রাজনৈতিক মহল মত তেমনটাই।<br />
&nbsp;</p>

স্রেফ স্মরণসভায় যোগ দেওয়াই নয়, নিহত দুই ছাত্রের স্মরণে এলাকায় শহিদ বেদির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। বিধানসভা ভোটে এই ইস্যুতে আন্দোলন কি জিইয়ে রাখতে চাইছে গেরুয়াশিবির? রাজনৈতিক মহল মত তেমনটাই।
 

<p>২০১৮ সালে ২০ সেপ্টেম্বর। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাঁড়িভিট হাইস্কুলের বাংলার শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনে নামে পড়ুয়ারা। তাদের সঙ্গে ছিলেন অভিভাবকরা। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে মাঝে আচমকাই গুলি চলে। গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারান স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণ। গুরুতর জখম হয় আরও এক ছাত্র।<br />
&nbsp;</p>

২০১৮ সালে ২০ সেপ্টেম্বর। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাঁড়িভিট হাইস্কুলের বাংলার শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনে নামে পড়ুয়ারা। তাদের সঙ্গে ছিলেন অভিভাবকরা। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে মাঝে আচমকাই গুলি চলে। গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারান স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণ। গুরুতর জখম হয় আরও এক ছাত্র।
 

loader