'টিকটক'-এর বিকল্প 'টুকটাক', নয়া অ্যাপস বানিয়ে তাক লাগাল পুরুলিয়ার যুবক

First Published 30, Jul 2020, 3:53 PM

লাদাখে হামলার পর দু'দেশের সম্পর্ক তলানি পৌঁছে গিয়েছে। চিনকে জব্দ করতে 'ভাতে মারা'র কৌশল নিয়েছেন ভারত। এ দেশে রাতারাতি টিকটক-সহ ৫৯টি চিনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে বিপাকে পড়েছেন টিকটক স্টারেরা। তবে আর চিন্তার কোনও কারণ নেই, গুগল প্লে স্টোরে চলে এসেছে টিকটকের বিকল্প অ্যাপ। এই অ্য়াপটি বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত গ্রামের এক যুবক।

<p>পুরুলিয়ার ঝালদার প্রত্যন্ত গ্রাম পুস্তি। এই গ্রামে থাকেন বছর বাইশের যুবক প্রসেনজিৎ কুইরি। তাঁক বাবা পেশায় পোস্টমাস্টার। তবে গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই কৃষিজীবী।<br />
 </p>

পুরুলিয়ার ঝালদার প্রত্যন্ত গ্রাম পুস্তি। এই গ্রামে থাকেন বছর বাইশের যুবক প্রসেনজিৎ কুইরি। তাঁক বাবা পেশায় পোস্টমাস্টার। তবে গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই কৃষিজীবী।
 

<p>ঝালদার সত্যভামা বিদ্যাপীঠ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস রাঁচিতে চলে যান প্রসেনজিৎ। কলেজ জীবন কেটে গিয়েছে পড়শি রাজ্য ঝাড়খণ্ডের রাজধানীতে। রাঁচির একটি কলেজ থেকে স্নাতক হন তিনি।<br />
 </p>

ঝালদার সত্যভামা বিদ্যাপীঠ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস রাঁচিতে চলে যান প্রসেনজিৎ। কলেজ জীবন কেটে গিয়েছে পড়শি রাজ্য ঝাড়খণ্ডের রাজধানীতে। রাঁচির একটি কলেজ থেকে স্নাতক হন তিনি।
 

<p>কম্পিউটারের প্রতি ঝোঁঝ ছিল সেই ছোটবেলা থেকেই। তখন ক্লাস নাইনে পড়তেন। বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে নিয়ে ওয়েব ডেভালপমেন্টের কাজ শুরু করে দিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ।<br />
 </p>

কম্পিউটারের প্রতি ঝোঁঝ ছিল সেই ছোটবেলা থেকেই। তখন ক্লাস নাইনে পড়তেন। বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে নিয়ে ওয়েব ডেভালপমেন্টের কাজ শুরু করে দিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ।
 

<p>স্নাতক হওয়ার পর আর চাকরি চেষ্টা করেননি ওই যুবক। ২০১৮ সালে তিনি নিজেই একটি কোম্পানি খুলে ফেলেন। কোম্পানিটিকে নথিভুক্তি করান কেন্দ্রীয় কর্পোরেশন বিষয়ক মন্ত্রকে।<br />
 </p>

স্নাতক হওয়ার পর আর চাকরি চেষ্টা করেননি ওই যুবক। ২০১৮ সালে তিনি নিজেই একটি কোম্পানি খুলে ফেলেন। কোম্পানিটিকে নথিভুক্তি করান কেন্দ্রীয় কর্পোরেশন বিষয়ক মন্ত্রকে।
 

<p>ব্যস আর কী! টিকটক নিষিদ্ধ হওয়ার পর বন্ধুদের সঙ্গে বিকল্প অ্য়াপ তৈরি কাজে নেমে পড়েন প্রসেনজিৎ। চিনা অ্যাপের অনুকরণে বিকল্প অ্যাপের নাম দিয়েছেন টুকটাক। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অ্যাপটি আপলোড করা হয়েছে গুগল স্টোরে। এখনও পর্যন্ত অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন পাঁচশোজন।<br />
 </p>

ব্যস আর কী! টিকটক নিষিদ্ধ হওয়ার পর বন্ধুদের সঙ্গে বিকল্প অ্য়াপ তৈরি কাজে নেমে পড়েন প্রসেনজিৎ। চিনা অ্যাপের অনুকরণে বিকল্প অ্যাপের নাম দিয়েছেন টুকটাক। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অ্যাপটি আপলোড করা হয়েছে গুগল স্টোরে। এখনও পর্যন্ত অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন পাঁচশোজন।
 

loader