বন্ধুকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন! স্রেফ সন্দেহের বশেই দুই যুবককে বেধড়ক মারধর করলেন স্থানীয় বাসিন্দারা।  পুলিশ গিয়ে আক্রান্তদের উদ্ধার করে। গণপিটুনির ঘটনা ঘটল হাওড়ার উলুবেড়িয়ায়।

আরও পড়ুন: ফের বসিরহাটে পণের বলি গৃহবধূ, পলাতক স্বামী শ্বশুর শাশুড়ি-সহ আটজন

ঘটনার সূত্রপাত গত বৃহস্পতিবার। উলুবেড়িয়ার বড়গ্রাম আমতলা এলাকায় থাকেন রমেশ বাগ। পেশায় তিনি সেলুনের কর্মী। পরিবারের লোকেদের দাবি, রাতে রমেশকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়েছিলেন চার বন্ধু। কিন্তু আর ফেরেননি ওই যুবক। শুক্রবার সকালে আমতার বড়পোলের কাছে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ছেলেকে খুনের অভিযোগ তোলেন রমেশ বাগের পরিবারের লোকেরা।

আরও পড়ুন: হাওড়ায় ফের স্টোনম্যানের আতঙ্ক, রাস্তার পাশে ঝোপে মিলল যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ

আরও পড়ুন: 'চালকের ঘুম' প্রাণ কাড়ল একজনের, বাস ও লরির সংঘর্ষে আহত ১৫

কিন্তু, রমেশকে খুন করল কে? জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরেছিলেন মৃতের এক বন্ধু শ্যামল।  আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে ভর্তি করা হয় উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এখন অনেকটাই সুস্থ শ্যামল। তিনিই নাকি জানিয়েছেন, রমেশ বাগকে খুন করেছে তাঁর দুই বন্ধুই। এরপরই অভিযুক্তদের বাড়িতে চড়াও হন স্থানীয় বাসিন্দারা। দু'জনকে স্থানীয় একটি ক্লাবে নিয়ে গিয়ে শুরু হয় বেধড়ক মারধর। ঘটনায় তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। শেষপর্যন্ত পুলিশ গিয়ে কোনওমতে আক্রান্তদের উদ্ধার করে। তবে এখনও পর্যন্ত মৃতের পরিবারের লোকেরা থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের করেননি বলে জানা গিয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।