রবিবার বিকেলে অন্ধ্রপ্রদেশের দেবীপত্তনমে একটি পর্যটক বোঝাই নৌকা উল্টে মৃত্য়ু হল অন্তত ১৩ জনের, এখনও আরও অনেকের খোঁজ মিলছে না। তাই, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। জানা গিয়েছে নৌতাটিতে মোট ৬১ জন ছিলেন, যার মধ্যে ৫০ জনই পর্যটক। গোদাবরী নদীর কাছে পাপিকোন্জালু পাহাড়ে ঘুরতে গিয়েছিলেন তাঁরা।

অন্দ্রপ্রদেশ রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর জানিয়েছে এখনও প্রায় ৪০ জনের কোনও খোঁজ মিলছে না। ঘটনাস্থলে ইতিমধ্যেই বিশাখাপত্তনম ও গুন্টুর থেকে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর দুটি দল এসে উপস্থিত হয়েছে। নৌকায় থাকা প্রত্যেকের গায়েই লাইফ জ্যাকেট ছিল। তাদের মধ্যে কেউ কেউ সাঁতড়ে পাড়ে উছঠে আসেন।   

গত কয়েকদিন ধরেই গোদাবরী নদীতে বন্যা পরিস্থিতি ছিল। ফলে প্যটকদের নৌকা বিহার বন্ধ রাখা হয়েছিল। কিন্তু শনিবার বন্যার জবল অনেকটাই নেমে যায়। তারপর রবিবারই ফের নৌকা ভ্রমণ চালুর অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

ঘটনার খবর পাওযার পরই ঘটনাস্থলে তাকা আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী জগমোহন রেড্ডি। তিনি ঘটনার জন্য ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণও  ঘোষণা করেছেন। সেই সঙ্গে উদ্ধারকার্যে নৌবাহিনী এবং ওএনজিসি-র হেলিকপ্টার ব্যবহার করার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী। গোদাবরীতে নৌকা বিহার আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। আগে প্রতিটি নৌকার স্বাস্থ পরীক্ষা করা হবে, সেই সঙ্গে নৌকা চালকের লাইসেন্স ইত্যাদি সব কিছু খতিয়ে দেখার পরই ফের এই পরিষেবা চালু করা হবে।

এই দুর্ঘটনা নিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও, পশ্চিমবঙ্গেপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় প্রমুখ।