৭২ ঘন্টা পর তামিলনাডুর তিরুচিরাপল্লীতে ১০০ ফুট গভীর সুড়ঙ্গ থেকে উদ্ধার হল দু বছর বয়সী সুজিতের পচাগলা মৃতদেহ। শুক্রবার নলকূপের জন্য খোঁড়া গর্তে পড়ে যায় সুজিত। এরপর থেকেই চলছিল সুজিত-কে উদ্ধারে চেষ্টা। পাশাপাশি সমান্তরাল একটি গর্ত খুঁড়ে সুজিত উইলসনের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করা হয়েছিল ঠিক ছোট্ট প্রিন্স-কে গর্ত থেকে উদ্ধার করতে যেমন পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তবে প্রিন্স-কে উদ্ধার করা গেলেও সুজিত-কে আর বাঁচানো গেল না। 

আরও পড়ুন- এখনও কুয়োয় আটকে সুজিত, চলছে উদ্ধারের চেষ্টা

শুক্রবার বিকেলে খেলতে খেলতে হঠাৎ করেই নলকূপের জন্য খোঁড়া গর্তে পড়ে যায় সুজিত। ৬৩ ফুট অবধি গর্তে নেমেই পচা দুর্গন্ধ পান উদ্ধারকর্মীরা। তখনই বুঝতে পারেন আর কোনও আশা নেই, সব শেষ। বহু মানুষের বহু চেষ্টার ফল বিফল হয়। মঙ্গলবার ভোরে উদ্ধার করা হয় সুজিতের মৃতদেহ। তামিলনাড়ুর নাডুকাট্টুপাট্টি গ্রামের নিকটেই শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয় সুজিতের মরদেহ শেষকৃত্যের জন্য।  দেশ জুড়ে বহু মানুষ টুইট করে শোক প্রকাশ করছেন ছোট্ট সুজিতের জন্য।

আরও পড়ুন- দীপাবলিতে স্বস্তি, তবে ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে ঘূর্ণিঝড় কিয়ার

মঙ্গলবার ভোররাতে উদ্ধার হওয়া সুজিতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। এরপরেই পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয় ছোট্ট সুজিতের মৃতদেহ। এই ঘটনার শোকস্তব্ধ তামিলনাড়ু সহ গোটা দেশ।

প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কা থেকেও সুজিত এর ঘটনায় শোক প্রকাশ করে টুইট করা হয়েছে। কান্নায় ভেঙ্গ পড়েছে গোটা দেশ। ৭৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চেষ্টা করার পরেও চিরদিনের মতো ঘুমিয়ে পড়ল ছোট্ট সুজিত। "আমরা দুঃখিত তোমায় ফিরিয়ে আনতে পারলাম না। তুমি যেখানেই থেকো ভালো থেকো" আর্তি সারা দেশের।