ফণীর চেয়েও রোদ ঝড় জল নয়, ধুলোঝড়ের কবলে পড়ে উত্তর প্রদেশে প্রাণ গেল ২৬ জনের। আহত অন্তত ৫৬ জন। মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে মইনপুরি, মথুরা, কনৌজ, সম্ভল, গাজিয়াবাদ, আমরোহা, মাহোবা জেলা।

স্টেট রিলিফ কমিশনরা জানাচ্ছে, বৃহস্পতিবারের ঝড়জলে সবচেয়ে  বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে মইনপুরি জেলা। বহু বাড়ির দেওয়াল ধ্বসে গিয়েছে, শুধু মইনপুরিতেই মারা গিয়েছেন ৬ জন।  ত্রাণ কমিশন থেকে ইতিমধ্যেই বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে, বহু জায়গায় গাছ উপড়ে গিয়েছে, দোকানের ছাদের চাল উড়ে গিয়েছে। উপড়ে পড়েছে কয়েকশো গাছ। দীর্ঘ সময় বন্ধ ছিল যান চলাচল।

বৃহস্পতিবার সন্ধে নাগাদ হঠাৎ ধুলোর ঝড় আসে উত্তর প্রদেশে। সেই সঙ্গে শুরু হয় তুমুল বজ্রপাত। তুমুল দুর্যোগে প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে যায় জনজীবন।সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার সন্ধের এই ঝড়জলে ৩১ টি গবাদি পশুও মারা গিয়েছে। বিদ্যুৎহীন হয়ে রয়েছে বেশ কিছু এলাকা। লক্ষ্ণৌতে বিদ্যুৎ পরিষেবা এখনও স্বাভাবিক নয়। উত্তররপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সমস্ত ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটদের পুরো বিষয়টি তদারকি করে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।  ইতিমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলিকে চার লক্ষ টাকা করে ত্রাণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার।