মহিলা যাত্রীর গায়ে আগুন ধরিয়ে দিলেন কন্ডাকটর। এমন হতবাক করা কাণ্ড ঘটেছে কাড্ডালোরে। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ওই মহিলার চিকিৎসা চলছে কাড্ডালোরের সরকারি হাসপাতালে। 

আরও পড়ুন: অতিথি তালিকা থেকে বাদ গেল কেজরিওয়ালের নাম, একাই 'হ্যাপিনেস ক্লাস' করবেন মেলানিয়া

নাভেলিতে নিজের দুই সন্তানকে নিয়ে থাকতেন আক্রান্ত মহিলা জে সালোমি। এক যুগ আগে  সালোমির সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল সেনায় কর্মরত ভিক্টরের। একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন সালোমি। বাসে করেই প্রতিদিন নিজের কর্মস্থলে যেতেন তিনি। তখনই আলাপ হয় কন্ডাকটর সুন্দরমূর্তির সঙ্গে। আরাসুরের বাসিন্দা সুন্দরমূর্তির সঙ্গে নিয়মিত কথাও বলতেন সালোমি। এদিকে সালোমি তাঁর সঙ্গে সম্পর্কে স্থাপনে আগ্রহী বলে ধারণা করেছিল সুন্দরমূর্তি। এই নিয়ে সালোমিকে বলতেই সুন্দরমূর্তির সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দেয় বছর ছব্বিশের সালোমি। আর তাতেই রাগ জন্মেছিল ওই বাস কন্ডাকটরের।

আরও পড়ুন:ভগবান রামকে এবার টেক্কা দেবেন তাঁর ভক্ত, বিশ্বের সবচেয়ে বড় হনুমান মূর্তি তৈরি হচ্ছে এদেশেই

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সালোমি কথা বলা বন্ধ করলেও তাঁকে নিয়মিত অনুসরণ করত ওই কন্ডাকটর। শুক্রবার সালোমির সঙ্গে দেখা করতে তাঁর অফিসেও পৌঁছে যায় সুন্দরমূর্তি। সেখানে সালোমিকে কথা বলার জন্য জোর করতে থাকে সে। কিন্তু সালোমি তাতে রাজি না হওয়ায় তার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয় সুন্দরমূর্তি। 

আরও পড়ুন: একাধারে ছিলেন শিক্ষাবিদ ও রাজনীতিক, মমতার হাত ধরেই এসেছিলেন রাজনীতিতে

সালোমিকে উদ্ধার করে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর শরীরের ২০ শতাংশ অগ্নিদগ্ধ হয়ে গিয়েছে। এদিকে ইতিমধ্যে অভিযুক্ত কন্ডাকটর সুন্দরমূর্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।