ছোটবেলার সেই সময়টার কথা মনে পড়ে, যখন আমরা শক্তিমান দেখার পরে নিজেরাই  শক্তিমান সাজতাম। প্রিয় কাল্পনিক চরিত্রগুলির সঙ্গে খুব সহজেই মিশে যেতাম। দিল্লির এক ব্যক্তিও সেই একই কাজ করেছেন। সুপার স্পাই জেমস বন্ডের চরিত্র দেখে তিনি  এতটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে নিজের নামটাই রেখে ফেললেন জেমস বন্ড।

ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক ইয়ান ফ্লেমিং রচনা করেছিলেন এক গোয়েন্দা চরিত্র জেমস বন্ড।  লন্ডনের সিক্রেট ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস বা এসআইএসের সেই প্রধান গুপ্তচরকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে দুনিয়া জুড়ে অসংখ্য উপন্যাস, চলচ্চিত্র, কমিকস এবং ভিডিও গেমস। বন্ড নিজেকে অন্য কারো সাথে পরিচয় করেন, "বন্ড, জেমস বন্ড"। এটাই তার আইডেন্টিটি। এহেন জেমস বন্ডের বিশ্বজোড়া অসংখ্যা ভক্ত রয়েছেন। বাদ নেই এদেশেও। তেমনি এক ভক্ত দিল্লির ৩৩ বছরের বিকাশ কদম।

আরও পড়ুন: তেহরানকে এবার কাছে টানল বেজিং, চাবাহার রেল প্রকল্প থেকে ভারতকে সরিয়ে দিল ইরান

অবাক শুনতে লাগলেও  বিকাশ  নিজের নাম সরকারি ভাবে পরিবর্তন করে রেখেছেন সুপার স্পাইয়ের নামে। কয়েক মাস আগেই এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তিনি। এবিষয়ে বন্ধু থেকে সহকর্মী কারও আপত্তিই গ্রাহ্য করেননি বিকাশ। তাঁর যুক্তি, বন্ড নামটি নাকি তাঁর ব্যক্তিত্বের সঙ্গেও বেশ খাপ খেয়ে যায়। 

 

পশ্চিম দিল্লির নওদা হাউজিং কমপ্লেক্সে ২ কামড়ার ঘরে ভাড়া থাকেন  বিকাশ কদম। সঙ্গে রয়েছে  স্ত্রী ও তিন বছর শিশুকন্যা। নিজের নাম পরিবর্তন নিয়ে বিকাশ বলছেন, 'এই খবর দাবানলের মতো ছড়িয়েছে, লোকেরা ভেবেছিলএটি রসিকতা,  কিন্তু তা নয়,  একেবারে সত্যি।'

আরও পড়ুন: আনলক দেশে এবার সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে বিহার, করোনার থাবার বন্ধ হল দিল্লির রেলভবন

 বিকাশের কথা,  জেমস বন্ডের চরিত্রটি দেখে তিনি এতটাই  মুগ্ধ হয়েছিলেন, যে  চরিত্রটিকে প্রাণবন্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে স্বামীর এহেন সিদ্ধান্তে  চরম ক্ষুব্ধ বিকাশের স্ত্রী। বিকাশকে  নিয়ে যে মস্করা শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় তা একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না তাঁর স্ত্রী। তবে পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে যে তিনি প্রস্তুত তা জানাচ্ছেন দিল্লির জেমস বন্ড। 

যদিও নিজের নাম পরিবর্তনের এই গল্প বাবা, মাকে জানিয়ে উঠতে পারেননি বিকাশ। যদিও এবার  আধার, প্যানকার্ড সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রে নিজের পরিবর্তিত নামটি তোলার প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছেন জেবস বন্ডের এই অন্ধ ভক্ত।