রবিবার ওড়িশার কান্ধামাল জেলার এক জঙ্গলে পুলিশি অভিযানে খতম হয়েছে দুই মহিলা-সহ কমপক্ষে চার মাওবাদী জঙ্গি। কান্ধামাল জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ এবং ডিস্ট্রিক্ট ভলিন্টিয়ারি ফোর্সের সদস্যদের একটি যৌথ দল রবিবার সকালে কান্ধামাল জেলার তুমুদিবাঁধ এলাকার কাছে সিরলা বনে একটি চিরুনী তল্লাশি চালানোর সময় মাওবাদীদের মুখোমুখি হয়েছিল। এরপর দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষে চার মাওবাদীর মৃত্যু হয়। সেখান থেকে বিপুল অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, ওই এলাকায় সশস্ত্র মাওবাদীদের উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত খবর পেয়ে শনিবার গভীর রাতেই পুলিশ সিরলা রিজার্ভ ফরেস্ট এলাকার কাছে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছিল। অভিযান চলাকালীন জঙ্গলের মধ্য়ে প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ জন সশস্ত্র মাওবাদী সদস্যের একটি বড় শিবির খুঁজে পাওয়া যায়। পুলিশ তাদের আত্মসমর্পণ করতে বলেছিল কিন্তু, জবাবে তারা গুলি চালাতে শুরু করে। পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেডও ছোড়ে বলে অভিযোগ। এরপর পাল্টা গুলি চালায় পুলিশ-ও। মাওবাদীরা তখন ঘন জঙ্গলের দিকে পালিয়ে যায়।

গোলাগুলি বন্ধ হওয়ার পর পুলিশ মাওবাদি শিবিরে গিয়ে নিহত চার মাওবাদীর মৃতদেহ উদ্ধার করে। তাদের পরিচয় যাচাই করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে পুলিশ ওই শিবির থেকে তিনটি এসএলআর রাইফেল, একটি ইনসাস রাইফেল এবং তাদের গোলাগুলি বাজেয়াপ্ত করেছে।

গত বৃহস্পতিবার এই কান্ধামাল জেলারই আরেক অরণ্যে একটি মাওবাদী শিবিরে হানা দিয়েছিল নিরাপত্তাকর্মীরা। সেখান থেকে প্রচুর বিস্ফোরক ও অন্যান্য সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছিল। প্রায় ১৫ কেজি বিস্ফোরক, ২৮ টি ডেটোনেটর এবং আইইডি হিসাবে ব্যবহার করার জন্য টিফিন ক্যারিয়ার মিলেছিল। এছাড়া ব্যাগ, জুতো, বিভিন্ন নথিপত্র এবং মাওবাদী পত্রপত্রিকা ওই শিবিরে পাওয়া গিয়েছিল। মাওবাদী সদস্যরা অবশ্য নিরাপত্তাকর্মীরা ওই শিবিরে হানা দেওয়ার আগেই পালিয়ে গিয়েছিল।