শুক্রবার ভোরে গুজরাতের রাজকোটের একটি কোভিড হাসপাতালে আইসিইউ-তে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মর্মান্তিক মৃত্যু হল ৫ কোভিড রোগীর। আরও ছয় জন গুরুতর জখম বলে জানা গিয়েছে। সব মিলিয়ে ৩০ জন করোনা রোগী ভর্তি ছিলেন ওই হাসপাতালে। হতাহতদের বাদ দিয়ে বাকি সকলকেই অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা গিয়েছে। এই ঘটনায় গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপাণী।

জানা গিয়েছে, এদিন ভোর ৫টা নাগাদ আগুন লেগেছিল রাজকোটের মাভদি এলাকার উদয় শিবানন্দ হাসপাতালের আইসিইউ-এ। দমকলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন আগুনের লাগার খবর পেয়েই তাঁরা ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়েছিলন। আইসিইউ-এ থাকা ৩০ জন রোগীকেই তাঁরা বাইরে বের করে এনেছিলেন। তাঁদের মধ্যে আইসিইউর ভিতরেই তিনজন রোগীর মৃত্যু হয়েছিল আর পরে আরও দুজন মারা যান।

পুড়ে খাক হয়ে গিয়েছে গোটা আইসিইউ ওয়ার্ডটি

কিছুক্ষণের মধ্যেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও, আগুন লাগার কারণ এখনও জানা যায়নি বলেই জানানো হয়েছে দমকলের পক্ষ থেকে। মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপাণী এই ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে মৃতদের পরিবারের জন্য ৪ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। সেইসঙ্গে এই ঘটনার একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। উদ্ধার করা করোনা রোগীদের শহরের অন্যান্য কোভিড-১৯ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহতদের সরকারি পিডিইউ হাসপাতালের বার্ন ওয়ার্জে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও এই ঘটনায় গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন। টুইট করে তিনি বলেছেন, রাজকোটে হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডের ফলে প্রাণহানির ঘটনায় তিনি অত্যন্ত শোক পেয়েছেন। নিহতদের পরিবারকে সমবেদন জানিয়েছেন তিনি। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন। সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থদের সকল সম্ভাব্য সহায়তা নিশ্চিত করার কাজ করছে প্রশাসন।

তবে গুজরাতে, অগ্নিকাণ্ডে কোভিড রোগীর মৃত্য়ুর ঘটনা এই প্রথম নয়। গত অগাস্ট মাসে আহমেদাবাদের একটি চারতলা বেসরকারি হাসপাতালের একেবারে উপরের তলায় আগুন লেগে গিয়েছিল। ওই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল আট কোভিড রোগীর।