রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে নতুন কোভিড আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে ৬৯,২৩৯ জন। আর এই সময়ে কোভিড জনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে ৯১২ জনের। এই নিয়ে গত এক সপ্তাহে প্রতিদিনই ৯০০-র উপরে মৃত্যু হল কোভিডে। অগাস্ট ১৬ থেকে অগাস্ট ২৩ এই আটদিনে মোট মৃত্যু হল ৬৭২৬ জনের। সবমিলিয়ে রবিবার ভারতে কোভিড মৃত্যুর সংখ্যা পৌঁছলো ৫৬৭০৬-এ।  

এদিন, ভারতের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়ে গেল। দেশে রবিবার সকাল পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০,৪৪,৯৪১ জনে। এরমধ্যে সক্রিয় মামলা অর্থাৎ চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭,০৭,৬৬৮ জন। আর সুস্থ হয়ে গিয়েছেন বা দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছেন  ২২,৮০,৫৬৭ জন।

অন্যদিকে আইসিএমআর জানিয়েছে, ২২ শে আগস্ট অবধি পরীক্ষিত নমুনাগুলির সংখ্যা ৩,৫২,৯২,২২০, গতকাল শনিবার ২২ অগাস্ট দেশে মোট ৮,০১,১৪৭ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত ভারতে মোট করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৩,৫২,৯২,২২০ টি।

তবে, এখন যেটা সবচেয়ে উদ্বেগের তা হল ভারতে কোভিডে বাড়তে থাকা মৃত্যুর সংখ্যা। গত ১৭ অগাস্ট ভারতের কোভিড মৃত্যুর সংখ্যা ৫০,০০০-এর গণ্ডি পার করেছিল। দেশে করোনাভাইরাস জনিত কারণে প্রথম মৃত্যুর পাঁচ মাস পর ৫০,০০০ পার করেছে মৃত্যুর সংখ্যা। তবে এর আগে এইরকম একটানা ৭ দিনের প্রতিদিন গড়ে ৯০০-পর বেশি মৃত্যু দেখা যায়নি। ভারতের রাজ্যগুলির মধ্যে কোভিড মৃত্যুর ক্ষেত্রে সবার আগে রয়েছে মহারাষ্ট্র। পশ্চিমের রাজ্যটির পরেই রয়েছে যথাক্রমে তামিলনাড়ু ও কর্ণাটক - এই দুই দক্ষিণের রাজ্য। আর তারপর দেশের রাজধানী দিল্লি।

অবশ্য শুধু ভারত নয়, বিশ্বেও করোনা মৃত্যুর হার ক্রমে বাড়ছে। বিশ্বে কোভিড মৃত্যুর সংখ্যায় ভারত এখন সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেশগুলির তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে। আগে আছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিল।   শুক্রবার রয়টার্স এক সমীক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল। তাতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯'এ এখন গড়ে চব্বিশ ঘন্টায় বিশ্বে প্রায় ৫,৯০০ মানুষের মৃত্য়ু হচ্ছে। অর্থাৎ প্রতি ঘন্টায় মৃত্যু হচ্ছে ২৪৬ জনের। সেকেন্ডে হিসাব করলে প্রতি ১৫ সেকেন্ডে কোভিডের বলি হচ্ছেন একজন মানুষ।