মা হওয়ার বয়স হয় নাকি। চিকিৎসা বিজ্ঞান আগেই প্রমাণ করে দিয়েছে মা হওয়ার বয়স নেই। যে কোনও বয়সে মা হওয়া যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের এই আশীর্বাদকে গ্রহণ করে ৭৫ বছরে  কন্যা সন্তানের মা হলেন রাজস্থানের কোটার এক প্রৌঢ়া। শনিবার সকালে আইভিএফের মাধ্যমে প্রৌঢ়া মা হয়েছেন। কোটার কিনকর হাসপাতাল  এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে। 

কিনকর হাসপাতালের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, সদ্যোজাত শিশুটির ওজন খুব কম হয়েছে। ৬০০ গ্রামের সদ্যোজাত শিশুটি শারীরিকভাবে সুস্থ সবল হয়নি বলে জানা গিয়েছে। চিকিৎসকরা মনে করছেন, বেশি বয়সে মা হওয়ার কারণেই শিশুটি শারীরিকভাবে সুস্থ হতে পারেনি। প্রেগন্যান্সির ছয় মাস থেকে মহিলার শরীরে বেশ কিছু জটিলতা ধরা পড়ে। শিশুটিকে বর্তমানে বিশেষ ইউনিটে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে। প্রৌঢ়া মা শারীরিকভাবে সুস্থ নয়। বয়সের কারণে বেশ কিছু শারীরিক অসুস্থতা রয়েছে। শুধু তাই নয়,  ওই মহিলার শরীরে একটা মাত্র ফুসফুস কাজ করছে। কোটার কিনকর হাসপাতালের চিকিৎসক অভিলাশা কিনকর জানিয়েছেন, এই পরিস্থিতিতে মা ও শিশুকে সুস্থ করে তোলা আমাদের কাছে একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 
 
জানা গিয়েছে, সদ্য মা হওয়া প্রৌঢ়ার আর্থিক অবস্থা ভালো নয়। কোটার কোনও এক গ্রামের কৃষক পরিবারের  সদস্য ওই প্রৌঢ়া। তিনি আগে একজনকে দত্তক নেন। কিন্তু নিজের সন্তানের আশায় কিনকর হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শ নেন প্রৌঢ়া। সেখানেই চিকিৎসকরা তাঁকে জানান, আইফিএফ পদ্ধতিতে তাঁর মা হওয়ার একটা সম্ভাবনা রয়েছে। কোনও সম্ভাবনাই প্রৌঢ়া ছাড়তে চাননি। রাজি হয়েছে যান আইভিএফ পদ্ধতিতে। বর্তমানে মা ও সদ্যোজাত শিশুকে সুস্থ রাখা কিনকর হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।