দেশ জুড়ে করোনাভাইরাসের দাপট অব্যাহত। মঙ্গলবারও  কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেবে দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ হাজার ৫২২ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে পাঁচ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এর মধ্যেই মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে আনলক-১। নতুন করে লকডাউন যে হচ্ছে না, তা সোমবার কেন্দ্রের বিজ্ঞপ্তিতেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল । ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ১ জুলাই থেকে দেশে শুরু হচ্ছে আনলক-২। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে কী ভাষণ দেন সেদিকেই তাকিয়ে ছিল গোটা দেশ। 

প্রধানমন্ত্রী শেষবার জাতির  উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছিলেন গত  ১২ মে, তখন তিনি অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে ২০ লাখ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেন। এর পরে আজকের ভাষণ। 

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে এই নিয়ে ষষ্ঠবার দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণ দিলেন মোদী। এদিন ভাষণের শুরুতেই দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খোলেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, ভারতের করোনা পরিস্থিতি বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় ভাল। তবে এদিনের ভাষণে প্রধানমন্ত্রীর সবচেয়ে বড় ঘোষণা ছিল , গরিবদের জন্য চাল, গম বিনামূল্য সরবরাহ। নভেম্বর পর্যন্ত গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনায় ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হবে বলে  জানান প্রধানমন্ত্রী।

 

প্রধানমন্ত্রী এদিন ভাষণের শুরুতে বলেন, করোনায় মৃত্যুতে অন্য দেশের তুলনায় ভাল জায়গায় ভারত। সঠিক সময়ে লকডাউন কার্যকরের সুফল মিলেছে। তবে আনলক ১ কার্যকর হওয়ার পর অনেক জায়গায় সুরক্ষা বিধি উপেক্ষা করা হয়েছে নিয়েও অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি । 

 

এর পাশাপাশি মোদী মনে করিয়ে দিয়েছেন গ্রাম হোক, বা শহর কোথাও কেউ নিয়মের ঊর্ধ্বে যেন না ওঠেন। প্রধানমন্ত্রী জানান, এখনও পর্যন্ত , গরিব কল্যাণ প্রকল্পে ২ লক্ষ কোটি বরাদ্দ করা হয়েছে। ৯ কোটির বেশি কৃষকের অ্যাকাউন্টে ১৮ হাজার কোটি জমা পড়েছে । গ্রামে শ্রমিকদের কাজের জন্য প্রকল্পে ৫০ হাজার কোটি বরাদ্দ হয়েছে । ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে ৩ মাসের রেশন দেওয়া হয়েছে। এবার সেই মেয়াদেরই বৃদ্ধি ঘটান হচ্ছে। নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্রকল্পে ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্য রেশন দেওয়া হবে এবার । এর জন্য  প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনায়  ৯০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। যার ফলে গরিব মানুষ  মাসে মাথাপিছু ৫ কেজি করে চাল, ৫ কেজি গম পাবেন বিনামূল্যে।