সোশ্যাল মিডিয়ায় উস্কানি দিচ্ছে ৮০০০ পোস্ট। অবিলম্বে এই পোস্ট ডিলিটের নির্দেশ দিল সরকার। অন্যথায় হাজতবাসের জন্য নেটিজেনদের প্রস্তুত থাকতে বলল কেন্দ্র।

হাজারও নজরদারির পরও শোধরানো যায়নি কিছুজনকে। ফেসবুক, টুইটার , হোওয়াটসঅ্য়াপ ছাড়াও একাধিক সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে উস্কানিমূলক পোস্ট। যা ঘিরে বেড়েই চলেছে পাল্টা আক্রমণ। অবিলম্বে এই ধরনের উস্কানিমূলক পোস্ট ডিলিটের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। পোস্ট ডিলিট না করায় ইতিমধ্য়েই গ্রেফতার করা হয়েছে ৯০ জনকে।

তবে উস্কানিমূলক পোস্ট ছাড়াও অযোধ্য়া মামলার রায় নিয়ে সম্প্রীতির বার্তা দিয়েছেন বহু মানুষ। টুইটারে হ্য়াসট্য়াগ হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই লিখে একাধিক  ছবি পোস্ট করা হয়েছে। রায় বেরোনোর পরই টুইটারে ট্রেন্ডিংয়ে চলে যায় এই হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই হ্য়াসট্যাগ। ছবিতে দেখা যায়, হিন্দু-মুসলিমের এক সঙ্গে ক্রিকেট খেলার ছবি। যেখানে হিন্দু সাধু ব্য়াট করলে উইকেট কিপিং করছেন একজন মুসলিম।

সম্প্রতি অযোধ্যা মামলার রায় বেরোনোর পর সোশ্য়াল মিডিয়ায় শুরু হয় বাকবিতণ্ডা। বার বার রায় বেরোনোর পর প্ররোচনামূলক পোস্ট থেকে বিরত থাকতে বলে সরকার। রায়ে অযোধ্য়ায় রাম মন্দির  নির্মাণের কথা বলা হলেও মসজিদের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে সরকারকে। মন্দির নির্মাণ ও মসজিদের বিকল্প জমির জন্য তিন মাসের মধ্য়ে ট্রাস্ট গড়তে বলা হয়েছে সরকারকে। অযোধ্যার জমির বিকল্প হিসাবে  ৫ একর জমি দেওয়ার কথা বলা হয়েছে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে।