তিনি সেনা সদস্য নন, বা তাঁর পরিবারের কেউ সেনা সদস্যও নন। কিন্তু, গত একবছরের মহারাষ্ট্রের শিল্পী, উমেশ যোগেন্দ্র যাদব সেনাবাহিনীর ঘরের লোক হয়ে উঠেছেন। পুলওয়ামায় শহিদ হওয়া ৪০ সিআরপিএফ জওয়ানদের বাড়ির ছেলে হয়ে উঠেছেন। এদিন জম্মু কাশ্মীরের লেথপোরা-য় সিআরপিএফ শিবিরে শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানে সুক্রবার তাঁকেই বিশেষ অতিথি-র মর্যাদা দেওয়া হল।

আরও পড়ুন - শহিদদের ঘর থেকে আসছে মাটি, পুলওয়ামায় তৈরি হচ্ছে অভিনব স্মৃতিসৌধ.

গত বছর জুলাই মাসে তাঁর কাজে হাত দিয়েছিলেন উমেশ। তারপর পরের কয়েক মাসে একটি গাড়ি নিয়ে ৬১০০০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়েছেন তিনি। ৪০ জন শহিদের বাড়িতেই যান তিনি। একটি মাটির ঘটে করে তাঁদের বাড়ি থেকে মাটি সংগ্রহ করে নিয়ে এসেছেন। তাঁর প্রথমে পরিকল্পনা ছিল পুলওয়ামায় ওই মাটি দিয়ে ভারতের মানচিত্রের আকারে একটি স্মারকস্তম্ভ তৈরি করা। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত এদিন লেথপোরায় পুলওয়ামা হামলার যে স্মারকস্তম্ভ আছে, সেখানেই শহিদদের ঘরের মাটি অর্পন করলেন তিনি।

আরও পড়ুন - পুলওয়ামার হামলা, অন্তর্তদন্তে একাধিক ব্যর্থতার অভিযোগ, মিলছে না কেন্দ্রের আগের দাবি

আরও পড়ুন - পুলওয়ামা হামলা, গায়ের জোরেই ঘাতক গাড়িটি থামাতে চেষ্টা করেন এএসআই মোহন

এদিন, তিনি লেথপোরার স্মরণসভায় যোগ দিয়ে জানান, পুলওয়ামার শহিদদের পরিবারের সকলের সঙ্গে দেখা করে তাঁদের আশীর্বাদ নিয়েছেন তিনি। এই কাজ করতে পারার জন্য তিনি গর্বিত। বাবা-মায়েরা তাঁদের ছেলেকে হারিয়েছেন, স্ত্রী-রা তাঁদের স্বামীদের, শিশুরা তাদের বাবাদের। বন্ধুরা হারিয়েছেন তাঁদের বন্ধুদের। এই সকলের সঙ্গে তিনি দেখা করেছেন। তাঁদের বাড়ি এবং যে শ্মশানে তাঁদের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে সেখান থেকে মাটি সংগ্রহ করেছেন তিনি।