অবশেষে মুম্বইয়ের আরে কলোনিতে প্রস্থাবিত মেট্রো কারশেডের জন্য গাছ কাটার উপর স্থগিতাদেশ জারি করল সুপ্রিম কোর্ট। এদিন আদালত মহারাষ্ট্র সরকারকে জানিয়েছে এই বিষয়ে পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্ষন্ত আর একটিও গাছ কাটা যাবে না। একই সঙ্গে আটক ২৯ জন পরিবেশকর্মীকেও ছেড়ে দেওয়া হল। মামলার পরবর্তী শুনানি হবে আগামী ২১ অক্টোবর।

গত বেশ কয়েকদিন ধরেই আরে কলোনির এই গাছ কাটা নিয়ে প্রতিবাদে উত্তাল হযেছে বানিজ্য নগরী। গোটা বিশ্ব যেখানে পরিবেশ রক্ষার জন্য কোমর বেঁধে নামবার প্রস্তুতি নিচ্ছে, তখন উন্নয়নের নামে নির্বিচারে বনভূমি ধ্বংসের মতো ভয়ঙ্কর কাজ চলছে। এর আগে বম্বে হাইকোর্টে অভিযোগ জানিয়ে খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল পরিবেশ কর্মীদের। গাছ কাটার বিষয়েই মত দিয়েছিল আদালত। এরপরই বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিতে চিঠি লিখে জানানো হয়।   

তড়িঘড়ি বিচারপতি অরুণ মিশ্র ও অশোক ভূষণ-কে নিয়ে একটি বিশেষ বেঞ্চ গঠন করে মামলাটি শুরু করা হয় সুপ্রিম কোর্টে। সোমবার এই বেঞ্চই গাছ কাটার উপর স্থগিতাদেশ জারি করল। তাঁরা জানিয়েছেন, গোটা বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখতে চান। কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রককেও এই মামলায় এক পক্ষ হিসেবে জুড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে যে ২৯ জন প্রতিবাদী পরিবেশকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল, তাদের অবিলম্বে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। মহারাষ্ট্র সরকারে পক্ষে সলিসিটর জেনারেল তুষাড় মেহতা আদালতকে জানান, প্রতিবাদীদের সকলকেই মুক্তি দেওয়া হয়েছে।