দিল্লি হিংসার ক্ষত এখনও দগদগে। অশান্তি রাজধানীর পরিস্থিতি এখনও কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও চাপা উত্তেজনা রয়েছে। মৃতের সংখ্যা প্রায় পঞ্চাশ ছুঁই ছুঁই। হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তিনশোরোও বেশি মানুষের। এর মধ্যেই সামনের সপ্তাহে হোলি উৎসব। তাই উৎসবকে ঘিরে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য আগ্রা পুলিশ ১৪৪ ধারা বলবৎ রাখছে।

সংশোধিত লাগরিকত্ব আইন, এনআরসি, সিএএ নিয়ে গত ডিসেম্বর থেকে দেশজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। তার পরিণতিতেই দিল্লির এই অশান্তি। এই আবহেই এবার হোলি উৎসব উৎযাপন হতে চলেছে গোটা উত্তর ভারত জুড়ে। তাই নিরাপত্তার দিকে এবার বাড়তি খেয়াল দিতে হচ্ছে পুলিশ প্রশাসনকে। 

আরও পড়ুন: প্রেমের টানে ফের ঘরছাড়া, আরও একবার কনের মাকে নিয়ে পালালেন বরের বাবা

সামনের সপ্তাহেই রঙের উৎসব হোলি। কেউ যাবে উৎসবের পরিবেশে শান্তি বিঘ্নিত করতে না পারে ও অবাধে ঘুরে বেড়াতে না পারে তার জন্য কড়া দাউয়াই দিয়েছে আগ্রা পুলিশ। শহর জুড়ে জাড়ি থাকবে ১৪৪ ধারা, জানিয়েছেন ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজি) আগ্রা জোন সতীশ গণেশ। 

"হোলি উৎসব যাতে শান্তিপূর্ণ থাকে সেজন্য প্রত্যেকটি জোনে সবকটি থানার পুলিশকে নিয়ে ৯ মার্চ রাত্রে বৈঠকে করা হবে।" জানিয়েছেন সতীশ গণেশ। 

আরও পড়ুন: ঝাড়খণ্ডে আইনের ছাত্রীকে গণধর্ষণ, ১১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল আদালত

হোলি উৎসবে কেউ সিএএ-এনআরিস প্রসঙ্গ টেনে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা তৈরির চেষ্টা করলে তাঁকে তৎক্ষনাত গ্রেফতার করা হবে বলেও জানিয়েছেন সতীশ। ব্রজ অঞ্চলে শান্তি বদায় রাখতে সমাজকর্মী ও সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাহায্যও নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ আধকারিক। 

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশের গৃহীত পদক্ষেপের কথা জানাতে গিয়ে সতীশ গণেশ বলেন, অসামাজিক কাজের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি যাদের পুলিশের খাতায় নাম রয়েছে তাদের উপর বাড়িত নজর রাখা হচ্ছে।