তার নির্বিচার গুলি চালানোয় প্রাণ গিয়েছিল বহু পুলিশ কর্মী থেকে সাধারণ মানুষের। অথচ সেই ২৬/১১ মুম্বই হামলার ধৃত জঙ্গি আজমল কাসব-ই নাকি ভারতমাতার নামে জয়ধ্বনি দিয়েছিল। তাও একবার নয় দুইবার। এমন বিস্ফোরক তথ্যই উঠে এসেছে মুম্বই-এর প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাকেশ মারিয়ার লেখা বই 'লেট মি সে ইট নাও'-এর পাতা থেকে।

রাকেশ মারিয়া জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত চলাকালীন তিনি আজমল কাসব-কে সঙ্গে করে মেট্রো জাংশনে নিয়ে গিয়েছিলেন। উদ্দেশ্য ছিল, ঘটনার পুনর্নির্মাণ। কিন্তু, তার কয়েকদিন আগেই সেখানে বহু পুলিশকর্মীকে হত্যা করেছিল। কাজেই সেখানে পৌঁছে রক্ত গরম হয়ে উঠেছিল পুলিশ কমিশনারের।

বই-তে তিনি লিখেছেন, কাসব-কে সেখানে মাটিতে মাথা ঠেকাতে আদেশ দিয়েছিলেন তিনি। কাসব-ও ভয়ে ভয়ে তা করেয তারপর রাকেশ মারিয়া কাসব-কে বলেন, 'ভারত মাতা কি জয়' (ভারতমাতার জয়) বলতে। কাসব সেই আদেশও পালন করে। কিন্তু একবারে মন ভরেনি মুম্বই-এর প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের। কাজেই তিনি ফের কাসব-কে দিয়ে ভারত মাতা কি জয় বলিয়েছিলেন।

শুধু তাই নয়, তিনি কাসব-কে মেট্রো জাংশনের কাঠের একটি মসজিদ-এও নিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে দিয়ে বারতীয় মুসলমানদের স্বচ্ছন্দে নামাজ পড়তে দেখে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে গিয়েছিল কাসব। কারণ, মারিয়ার দাবি লস্কর-ই-তৈবার নেতারা কাসব-কে বুঝিয়েছিল, ভারতে নামাজ পড়া নিষিদ্ধ। মসজিদগুলিতে তালা দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর এইভাবেই তার মনে জেহাদের বীজ পুতেছিল জঙ্গি নেতারা বসলে দাবি করেছেন এই প্রাক্তন পুলিশ কর্তা।