বিরোধীদের অভিযোগ, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ কী চান, তা না শুনেই ৩৭০ ধারা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার কিন্তু উপত্যকার নির্বাচিত পঞ্চায়েত প্রধানদের বক্তব্য শুনলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুধু তাদের অসুবিধার কথা শোনা নয়, জম্মু-কাশ্মীরের প্রতিনিধিদের তিনি এদিন জানান আগামী ১৫ দিনের মধ্য়েই যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক হতে চলেছে। এছাড়া সমস্ত পঞ্চ ও সরপঞ্চের জন্য ২ লক্ষ টাকা করে বীমার কথাও ঘোষণা করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এদিন জম্মু কাশ্মীর পঞ্চায়েত অ্যাসোসিয়েশন-এর প্রতিনিধিরা দিল্লি তে আসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেষ। বৈঠকের আগে সংগঠনের সভাপতি অনিল শর্মা জানান, এদিনের বৈঠকের মূল বিষয় হল ৩৭-০ ধারা বাতিল ও তারপরে কাশ্মীরের উন্নয়ন। এছাড়া পঞ্চায়েতের ক্ষমতায়নের বিষয়টিও তোলা হবে। অনেক সদস্যই জানিয়েছেন, অমিত শাহকে ধন্যবাদ দিতেই তাঁরা দিল্লি এসেছেন।

গত ৫ অগাস্ট, কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করেছিল। সেই সময় থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে সমস্ত সরকারি ও বেসরকারই ল্যান্ডলাইন, মোবাইল, ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তারপর বল্যান্ডলাইন পরিষেবা চালু করা হলেও, এখনও ইন্টারনেট ও মোবাইল পরিষেবা এখনও বন্ধই হয়ে রয়েছে। এবার একেবারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাস আদায় করে উপত্যকায় ফিরছেন পঞ্চায়েত প্রধানরা।