প্রয়াত প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৬৭ বছর বয়সে দিল্লির এইমস-এ তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিজেপি শিবির-সহ রাজনৈতিক মহলে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তাঁর প্রয়াণে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব শোক প্রকাশ করেছেন। সুষমার মৃত্যুতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইট করে শোকপ্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ-এর মৃত্যুতে তিনি অত্যন্ত দুঃখিত, তাঁর মতো প্রখর বক্তা, আদর্শ নেত্রী, লোকপ্রিয় জনপ্রতিনিধি এবং এক কর্মঠ মন্ত্রী বিভিন্ন রুপে ভারতীয় রাজনীতিতে সুদূরপ্রসারী ছাপ রেখে গিয়েছেন। 

&nb

sp;

 

অপর একটি টুইটে তিনি জানান 'সুষমা স্বরাজ-এর মৃত্যু ভারতীয় রাজনীতিতে এক অপূরণীয় ক্ষতি। আমি ওনার সমস্ত আত্মীয় পরিজন, সমর্থককে সমবেদনা জানাই। ভগবান তাঁর আত্মার শান্তি প্রদান করুন।' বহু দেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের উন্নতিতে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছিলেন সুষমা। মন্ত্রী হিসেবে তিনি বিশ্বের যে কোনও প্রান্তে বিপদে পড়া ভারতীয়দের সাহায্য করেছেন। বলা বাহুল্য তিনি ছিলেন ভারতীয় রাজনীতিতে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র।  

 
মঙ্গলবার রাত ১০টা নাগাদ তিনি প্রয়াত হন প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। খবর প্রকাশ্যে আসা মাত্রই দেশ জুড়ে নেমে আসে শোকের ছায়া। ২০১৬ সাল থেকেই নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। এই সময় তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন করা হলেও শরীর বেশ দুর্বল হয়ে পড়ে। নিজেকে রাজনীতির অলিন্দ থেকে সরিয়ে নিতে চেয়েছিলেন তিনি। ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন বিদেশমন্ত্রীর পদ। জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার প্রস্তাব লোকসভায় গ্রহণ হওয়ার পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে টুইটও করেছিলেন তিনি। এর ঘণ্টাখানেক পরেই প্রবল হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। রাত ন'টা নাগাদ এইমস-এ নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রথমে আইসিইউ-তে রাখা হয় তাঁকে। সে সময়ও তাঁর চেতনা ফেরেনি। শেষমেশ রাত ১১টা নাগাদ এইমস থেকে সরকারিভাবে সুষমার প্রয়াণের খবর ঘোষণা করা হয়।