সন্ত্রাস দমনে যে দিনে দিনে ক্রমশ কড়া হচ্ছে প্রশাসন তার প্রমাণ মিলেছিল গত সপ্তাহে, যখন জম্মু ও কাশ্মীরে ১০ হাজার অতিরিক্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল দু'দিনের সফর শেষ করে কাশ্মীর থেকে ফেরার পরই এই ১০ হাজার আধা সামরিক সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। আর এবার আরও প্রায় ২৫,০০০ সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিল সরকার।

প্রশাসনিক সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সেনা জওয়ানরা কাশ্মীর উপত্যকায় পৌঁছাতে শুরু করে দিয়েছেন। শুক্রবার সকাল থেকেই তাঁদের কাশ্মীরের একাধিক জায়গায় মোতায়েন করার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রসঙ্গত গত সপ্তাহেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে, জম্মু ও কাশ্মীরের উপত্যকায় সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান আরও জোরদার করার জন্য সুরক্ষা বাহিনীর ১০০ কোম্পানী সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। 

ফের চরবৃত্তির অভিযোগে এক ভারতীয়কে গ্রেফতার করল পাকিস্তান পুলিশ

তবে উপত্যকায় এত বিশাল সংখ্যক সেনাবাহিনী মোতায়েনের খবরে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন মহলে শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা। সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত বৃহস্পতিবারদিনই গিয়ে পৌঁছেছেন শ্রীনগরে। গোটা নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখছেন তিনি। সূত্রের খবর, উপত্যকায় মোতায়েন থাকা সেনাবাহিনীকে যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।