দিল্লিতে ধরা পড়া আইএস জঙ্গিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মিলল চাঞ্চল্যকর তথ্য। অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভূমি পূজার একমাসের মধ্যেই একটি বড় সন্ত্রাসবাদী হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তবে শুধু তাই নয়, একইসঙ্গে এই আইএস লোন উলফ-এর সঙ্গে উত্তরপ্রদেশের সিএএ বিরোধী আন্দোলন ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অপরাধীদের সংযোগও মিলেছে।

শনিবার সকালে দিল্লিতে ওই আইএসআইএস জঙ্গি গ্রেফতারের পরই পাশের রাজ্য উত্তরপ্রদেশ পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। কারণ দিল্লিতে গ্রেফতার হওয়া ওই জঙ্গি উত্তরপ্রদেশের বলরামপুরের বাসিন্দা। ইতিমধ্য়েই উত্তরপ্রদেশ অ্যান্টি টেরোরিজম স্কোয়াড (ইউপি এটিএস)-এর একটি দল দিল্লিতে পৌঁছে গিয়েছেন। এছাড়া স্কোয়াডের আরেকটি দল গিয়েছে বলরামপুরে, ওই জঙ্গির বিষয়ে আরও তথ্য সংগ্রহে। পুলিশের সঙ্গে একদফা সংঘর্ষের পর দিল্লী পুলিশ মধ্য দিল্লির রিজ রোড অঞ্চল থেকে ওই আইএস সন্ত্রাসবাদীকে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে আইইডি বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।

উত্তরপ্রদেশ সরকারের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ধৃত জঙ্গি পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সময় জানিয়েছে, অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থপনের এক মাসের মধ্যেই তাঁর একটি বড়সড় সন্ত্রাসবাদী হামলা করার পরিকল্পনা ছিল। তবে সেইসঙ্গে, গত বছরের শেষদিকে উত্তরপ্রদেশে নয়া নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে যে হিংসাত্মক বিক্ষোভের কারণে সংখালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের গ্রেফতার করা হয়েছিল এবং তাঁদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকার নতুন আইন জারি করেছিল, তার বিরুদ্ধেও প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল সে। সেইসঙ্গে বদলা নিতে চেয়েছিল উত্তরপ্রদেশ পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৪৭ জন অপরাধীর মৃত্যুরও।