অসমে নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আগুন জ্বলছে। তাতে ঘি ঢাললেন অসম বিধানসবার স্পিকার তথা বিজেপি নেতা হিতেন্দ্রনাথ গোস্বামী। বৃহস্পতিবার তিনি বলেছেন, অসমবাসী নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল নিয়ে যে সন্দেহ প্রকাশ করছেন তা ভিত্তিহীন নয়। এই বিল বাস্তবায়িত হলে সমাজে বিভাজন তৈরির প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। একই সঙ্গে তিনি অসমের জনগণের ক্রোধ ও অভিযোগের প্রতিকারের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন করেছেন।

তিনি বলেন, স্পিকারের পদে থেকে কোনও আইনের বিষয়ে তাঁর মন্তব্য করা উচিত নয়। স্পিকার হিসাবে তাঁর সাংবিধানিক দায়িত্ব থাকলেও একজন ব্যক্তি হিসেবে জাতি ও সম্প্রদায়ের কথা ভাবাটাও তাঁর কাজ। সেখান থেকেই তাঁর মনে হচ্ছে, নাগরিকত্ব আইন নিয়ে যে সন্দেহের বাতাবরণ তৈরি হয়েছে তা একেবারে ভিত্তিহীন নয়। তাঁর মতে এই আইনটি প্রয়োগ করা হলে বিভিন্ন জাতি, সম্প্রদায় এবং ভাষার মধ্যে বিভাজন তৈরির প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।

গত জানুয়ারিতে লোকসভায় এই বিলের আগের সংস্করণটি অনুমোদন পাওয়ার পরেও তিনি বলেছিলেন এই আিন অসমের ঐক্য ও অখণ্ডতার পক্ষে হুমকির। রাজ্যের নিরপেক্ষ নাগরিক হিসাবে তিনি এই পদক্ষেপকে সমর্থন করবেন না। বৃহস্পতিবার তিনি জানিয়েছেন তাঁর আগের অবস্থানের কোনও পরিবর্তন ঘটেনি। স্পিকারের সাংবিধানিক দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি তাঁর নির্বাচনী এলাকার সর্বাত্মক উন্নয়নের প্রতিও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

তবে কি তিনি বিজেপি দল ছেড়ে দেবেন? হিতেন্দ্রনাথ গোস্বামী কিন্তু সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন। তবে তরুণ প্রজন্ম কেন এই বিসলের বিরোধিতা করছে তা সকলের ভেবে দেখার দরকার আছে বলে তিনি মনে করেন। স্পিকার বলেছেন, 'সক্রিয় রাজনীতিতে গত ৩০ বছরে আমি অনেক কিছু শিখেছি এবং আমি তরুণ প্রজন্মের চিন্তাভাবনা ও ধারণাকে সম্মান করি।'