ভারতের অর্থনৈতিক মন্দার একটা বড় প্রভাব পড়েছে গাড়ি শিল্পে। ইতিমধ্যেই প্রচুর কর্মীকে ছাঁটাই করতে বাধ্য হয়েছে মারুতি সংস্থা। এমনকী অবস্থা সামাল দিতে উৎপাদন বন্ধও রাখতে বাধ্য হচ্ছে মারুতি অশোক লেল্যান্ডস-এর মতো সংস্থা। এই অবস্থায় অটোমোবাইল সংস্থাগুলির দাবিকে গুরুত্ব দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করবে সরকার বলে আশ্বস্ত করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। তবে গাড়ির চাহিদা কমে যাওয়ার পিছনে তিনি দায়ী করলেন ওলা-উবেরকে।

এদিন দ্বিতীয় মোদী সরকারের ১০০ দিন পূর্তী উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে অর্থ দপ্তরের রিপোর্ট কার্ড পেশ করেন অর্থমন্ত্রী। দাবি করেন সরকার প্রথম ১০০ দিনেই বেশ কিছু যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছে। সেখানেই স্বাভাবিকভাবে তাঁকে গাড়ি শিল্পের বেহাল দশা নিয়েও প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়। তিনি জানান, গাড়ি শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিএস৬ বা ভারত স্টেজ ৬ এবং দেশবাসীর মনোভাবের বদলের জন্য। তাঁর মতে বর্তমানে ভারতবাসী নিজেরা গাড়ডি কেনার থেকে ওলা, উবেরের মতো মোবাইল ক্যাব সংস্থার পরিষেবাই ব্যবহার করতে বেশি আগ্রহী।

তবে সরকার গাড়ি শিল্পের এই বেহাল দশা কাটাতে গুরুত্ব সহকারে এই শিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের বিভিন্ন পরামর্শ নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করছে। ইতিমধ্যেই তাদের বেশ কিছু চাহিদা মেনে নিয়েছে সরকার। এরপরেও বেশ কিছু চাহিদা রয়ে গিয়েছে। তার অন্যতম হল ২৮ শতাংশ থেকে জিএসটি-র হার কমানো। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন এই বিষয়ে আগামী ২০ সেপ্টম্বর গোয়ার জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে।