মারাত্মক ছোঁয়াচে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সারিয়ে দিতে পারবেন তিনি। তিনি খুঁজে পেয়েছে করোনাজীবাণু থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার উপায়। এমনই দাবি করে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দেয়ের করেছিলেন হরিয়ানারা বাসিন্দা ওমপ্রকাশ বেদ জ্ঞানতারা। কিন্তু তাঁর এই দাবি জন্য সুপ্রিম কোর্ট ১০ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করেছে। 

হরিয়ানার বাসিন্দা ওমপ্রকাশ বেদ জ্ঞানতারা। পেশায় আর্য়ুবেদিক চিকিৎসক। মেডিসিন ও সার্জারিতেও তাঁর স্নাতক ডিগ্রি রয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানিয়ে বলেছিলেন, তিনি করোনাভাইরাসের ওষুধ খুঁজে পেয়েছেন। আর তাঁর তৈরি ওষুধ যাতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক ও স্বাস্থ্য দফতর ব্যবহার করে তারজন্য ছাড়পত্র দিতে হবে। তিনি দাবি করেছেন দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ যেভাবে বেড়ে চলেছে তার সঙ্গে লড়াই করার জন্য তাঁর তৈরি করোনার ওষুধ দেশজুড়ে ব্যবহারের নির্দেশ দেওয়া হোক। 

গোগরা হটস্প্রিং থেকে সরতে নারাজ ড্রাগনরা, কূটনৈতিক বৈঠকের পরেও সীমান্ত উত্তাপ প্রসমনে 'কাঁটা' প্যাংগ...

মহামারির আবহে অনলাইন পড়াশুনা কেমন চলছে দেশে, নজররাখুন তারই রিপোর্ট কার্ডে

কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট এই  উদ্ভট আবেদন শোনা মাত্রই তা খারিজ করে দিয়েছে। পাশাপাশি আর্য়ুবেদিক চিকিৎসককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  সুপ্রিম কোর্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওমপ্রকাশের দায়ের করা জনস্বার্থ মামলাটি ভুল আর এটিকে প্রত্যাখ্যান করা জরুরি। কারণ এই জাতীয় মামলা দায়ের করা থেকে বিরত থাকার বার্তা দেওয়া জরুরি বলেও জানিয়েছে আদালত। বর্তমানে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৯ লক্ষের বেশি। দৈনিক আক্রান্তের গড় ৬০ হাজারেরও বেশি। এই অবস্থায় সুস্থ হচ্ছেন প্রচুর মানুষে। কিন্তু মৃতের সংখ্যাও ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। তাই এই মহামারি নিয়ে এই জাতীয় উদ্ভট দাবি থেকে সাধারণ মানুষ যাতে বিরত থাকেন সেই দিকেই ইঙ্গিত দিতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। 

তিমির পিঠে চড়ে সমুদ্রে পাড়ি, ভাইরাল ভিডিও ঘিরে চরম উন্মাদনা নেটিজেনদের মধ্যে ...