সাহসিকতার সঙ্গে কাজ করেছে তেলেঙ্গানা পুলিশ। ন্যায়বিচারও হয়েছে। পশু চিকিৎসকের গণধর্ষণ এবং খুনের ঘটনায় চার অভিযুক্তের  এনকাউন্টারে মৃত্যুর পর এমনই মত যোগগুরু বাবা রামদেবের। 

রামদেব বলেন, 'পুলিশ যা করেছে তা অত্যন্ত সাহসী পদক্ষেপ। আমি বলতে বাধ্য হচ্ছি যে এই ঘটনায় ন্যায়বিচার হয়েছে। এনকাউন্টারের ঘটনার আইনি দিক নিয়ে বিতর্ক চলতেই পারে, কিন্তু যা হয়েছে তাতে দেশের মানুষ শান্তি পাবেন।'

তিনি আরও বলেন, 'যে অপরাধীরা দেশ এবং ধর্মের নামে কলঙ্ক, যাদের জন্য আমাদের সংস্কৃতির বদনাম হয়, এই ধরনের অপরাধী এবং সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে এমনটাই  করা উচিত পুলিশ এবং সেনার। আর যে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ নিয়ে কোনও সংশয় থাকবে, তাদের আদালতে বিচার হোক।'

এ দিন সকালেই হায়দরাবাদে গণধর্ষণে অভিযুক্ত চার জনের এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়। সাইবারাবাদ পুলিশের দাবি, চার অভিযুক্তকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিতার মোবাইল ফোন, পাওয়ার ব্যাঙ্ক, হাতঘড়ি উদ্ধারের চেষ্টা করা হয়। তখনই ওই অভিযুক্তরা পুলিশের আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিও চালানো হয়। পাল্টা পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় চারজনের।