প্রায় তিন দশক পরে স্বাস্তি পেলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী। বাবরি মসজিদ নিয়ে সিবিআই আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়েছে বর্ষিয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী। তিনি বলেনে এই দিনটি তাঁর কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আদালত সমস্তকিছু খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা তাঁর ও তাঁর সঙ্গীদের কাছে খুশির খবর বলেও জানিয়েছেন বর্ষিয়ান বিজেপি নেতা। তিনি আরও বলেছেন এই রায় প্রমান করে রামজন্মভূমি আন্দোলনে তাঁর যোগদান ছিল ব্যক্তিগত বিশ্বাস। দলের বিশ্বাস আর প্রতিশ্রুতি থেকেই আন্দোলনে অংশ নিয়েছিলেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। রায় ঘোষণার পরই জয়শ্রীরাম স্লোগানও দেন তিনি। 

 কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুরলিমনোহন জোশী। বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় বেকসুর খালাস করে দেওয়া হয়েছে তাকে। 'সবকো সম্মতি দে ভগবান' বলেই লখনৌয়ের সিবিআই আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি। তিনি বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায়কে ঐতিহাসিক বলেও মন্তব্য করেছেন। তিনি আরও বলেছেন, এই রায়ই প্রমান করে যে অযোধ্য়ায় ৬ ডিসেম্বরের ঘটনার জন্য কোনও ষড়যন্ত্র করা হয়নি। তিনি দাবি করেছেন তাঁদের কর্মসূচি আর সমাবেশ কোনও ষড়যন্ত্রের অংশ ছিল না। পাশাপাশি রাম মন্দির নির্মাণ নিয়েই উচ্ছাস প্রকাশ করেন তিনি।

বর্ষিয়াণ দুই বিজেপি নেতাকেই এদিন আদালতে উপস্থিতি থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছিল।  তাঁরা বাড়িতে ভিডিও কনফারন্সের মাধ্যেই রায়দান পর্বে অংশ নিয়েছিলেন। এদিন রায় ঘোষণার সময় লালকৃষ্ণ আডবাণীর কাছে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ।