প্রয়াত অরুণ জেটলির শেষকৃত্য়ে উপচে পড়েছিল ভিড়। ভিআইপিদের পাশাপাশি প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে হাজির হয়েছিলেন অসংখ্য সাধারণ মানুষ। আর সেই ভিড়ের মধ্যেই খোয়া গেল একাধিক মোবাইল ফোন। যাঁদের মোবাইল খোয়া গিয়েছে তাঁদের মধ্যে রয়েছেন দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও। 

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুয়ায়ী, দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় এবং সোম প্রকাশের মোবাইল ফোন চুরি হয়ে যায় জেটলির শেষকৃত্যের সময়। বাবুল কেন্দ্রীয় বন এবং পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী। সোম প্রকাশ শিল্প এবং বাণিজ্য দফতরের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন। শুধু বাবুল নন, তাঁর সচিবের মোবাইল ফোনও খোয়া গিয়েছে। ফোন চুরির কথা প্রকাশ্যে আসতেই তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন- চোখের জলে বিদায় অরুণ জেটলিকে, শেষকৃত্যে সামিল অসংখ্য সাধারণ মানুষ

আরও পড়ুন- জেলেও মাথা ঠান্ডা রাখতেন জেটলি, দীর্ঘদিনের বন্ধুকে হারিয়ে স্মৃতিচারণা বিজেপি নেতার

পরে বাবুল জানান, 'জল জমে থাকায় এক জায়গায় ভিড় বেশি হয়ে গিয়েছিল। আমার মনে হয় সেখানেই পকেটমাররা ভিড়ে মিশে ছিল। আমরা লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।'

বাবুলের দাবি, জেটলির শেষকৃত্যের সময় দশ থেকে পনেরো মিনিট অন্তর কেউ না কেউ ফোন চুরি যাওয়ার কথা বলছিলেন। পুলিশকে পুরোপুরি দোষ না দিলেও বাবুল বলেন, 'প্রতিটি পকেটমারের উপরে পুলিশের পক্ষে নজর রাখা সম্ভব নয়। কিন্তু ওখানে আরও কিছু সিসিটিভি থাকলে ভাল হত।'

হাল্কা মেজাজে অবশ্য বাবুল বলেছেন, 'একজন শিল্পী হিসেবে আমি পকেটমারদের হাতের কাজের তারিফ না করে পারছি না।'

দিল্লি পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, বাবুল সুপ্রিয়, তাঁর সচিব ধর্মেন্দ্র কৌশল, সোম প্রকাশ ছাড়াও বিনোদ কুমার এবং রতন ডোগরা নামে মোট পাঁচজনের মোবাইল খোয়া যাওয়ার অভিযোগ দায়ের হয়েছে। চুরি যাওয়া মোবাইলগুলি খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন দিল্লি পুলিশের জনসংযোগ আধিকারিক।