প্রয়াত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির শেষকৃত্যু ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। সকাল দশটা নাগাদ তাঁর মরদেহ নিয়ে আসা হয়েছিল দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে। সেখানে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন বিজেপির বিভিন্ন সারির নেতা-মন্ত্রীরা। 

এর আগে শনিবার তাঁর মৃত্য়ুর পর হাসপাতাল থেকে তাঁর মরদেহ নিয়ে আসা হয় তাঁর কৈলাশ কলোনির বাসভবনে। রবিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত তাঁর মরদেহ তাঁর বাসভবনেই ছিল। এদিন তাঁর বাসভবনে এসে তাঁকে শ্রদ্ধা জানান বিজেপির প্রথম সারির নেতা মন্ত্রীরা।  তারপর তাঁর মরদেহ বাড়িতে নিয়ে আসা হলে সেখানেও চলে বর্ষীয়ান এই বিজেপি নেতার শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন পর্ব। 

অস্ত গেলেন অরুণ, পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে আজ

 

এরপর তাঁর শবদেহ নিয়ে দুপুর দুটো নাগাদ দিল্লির নিগমবোধ ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয় বিজেপির কর্মীসমর্থক ও নেতারা। বেলা দুটো নাগাদ নিগমবোধ ঘাটে পৌঁছানোর পরেই প্রয়াত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির ছেলে রোহন জেটলি বাবার মরদেহ বয়ে নিয়ে আসেন নিগমবোধ ঘাট শ্মশানের অন্দরে। তাঁর অন্তিম সংস্কারের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে কাঠের চিতা। এর পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে রয়েছেন বিজেপি-র বিভিন্ন সারির নেতা। 

 

প্রসঙ্গত, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্য়া নিয়ে গত ৯ অগাস্ট দিল্লির (এইসমস)-এ ভর্তি হন অরুণ জেটলি। এরপর থেকে টানা দু-সপ্তাহ ধরে চলে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই, অবশেষে সেই লড়াইয়ে ইতি টেনে অস্তাচলে অরুণ। শনিবার বেলা ১২টা বেজে ৭ মিনিট নাগাদ দিল্লির এইমস-এ  শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বর্ষীয়ান এই বিজেপি নেতা।