নয়া সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং প্রস্তাবিত দেশব্যপী জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর বিরুদ্ধে আন্দোলন চলছেই। কিন্তু এরমধ্য়েই ধানবাদের একটি ঘটনা প্রশ্ন তুলে দিল, ঠগ বাছা যে হবে বলা হচ্ছে তা কেমন করে হবে? রেলপুলিশ (জিআরপি) জানিয়েছে, শনিবার বিকেলে ধানবাদ স্টেশন থেকে ভুয়ো আধার কার্ড এবং ভারতীয় ভোটার কার্ড-সহ এক বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জিআরপি-র ইন্সপেক্টর হরিনারায়ণ সিং জানিয়েছেন, ধানবাদ রেলস্টেশনে টিকিট চেক করার সময় বিনা টিকিটে ভ্রমণ করার জন্য মহম্মদ বেলাল নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। সে প্রথমে দাবি করে, সে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার বাসিন্দা। কিন্তু, টিটি-র চোখে পড়ে যায়, বেলালের সঙ্গে বাংলাদেশি পাসপোর্ট রয়েছে। তা দেখেই তাঁর সন্দেহ হয় এবং তিনি আরপিএফ কর্মীদের খবর দেন।

এরপর তাঁকে চাপ দিতেই সে জানায় আদতে সে বাংলাদেশের সিলেট জেলার তেজপুরের বাসিন্দা। তাঁর দাদা কমলউদ্দিন লখনউ কারাগারে বন্দি। দাদার সঙ্গে দেখা করে সে অমৃতসর-কলকাতা দুর্গিয়ানা এক্সপ্রেসে করে, লখনউ থেকে কলকাতায় যাচ্ছিল। কলকাতা থেকেই বাংলাদেশে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলায় জাল আধার এবং ভারতীয় ভোটার কার্ড তৈরি করিয়েছিল সে।

ইন্সপেক্টর হরিণারায়ণ সিং জানিয়েছেন, বেলাল নিজের বাংলাদেশি পরিচয় স্বীকার করার পরই তাকে হেফাজতে নেওয়া হয়। তার কাছ থেকে তিনটি বাংলাদেশি পাসপোর্ট, সেই দেশের মুদ্রা এবং মার্কিন ডলার-ও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। শনিবারই বেলালকে বিশেষ রেলওয়ের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌরব খুরানার এজলাশে পেশ করা হয়। তাকে ১৪ দিনের জন্য বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।