৩০ জানুয়ারি সরস্বতী পুজো উপলক্ষ্যে ছিল ব্যাঙ্ক হলিডে। তার পরের দুদিনকেই বেছে নেওয়া হয়েছিল ধর্মঘটের জন্য। যদিও শেষ বেলা পর্যন্ত ধর্মঘট ছিল না নিশ্চিত। একাধিক দাবি নিয়ে ব্যাঙ্ককর্মীরা এদিন মুম্বইয়ে দীর্ঘ সময় ধরে বৈঠক করেন। কিন্তু তাতে আশানুরূপ প্রতিক্রিয়া না মেলায় অবশেষে পর পর দুদিন ধর্মঘটের ডাক দেন তাঁরা। 

ব্যাঙ্ককর্মীদের একাধিক দাবির মধ্যে অন্যতম পাঁচ। যা হল- বেতন বৃদ্ধি করতে হবে ২০ শতাংশ, সপ্তাহে দুদিন বন্ধ থাকবে ব্যাঙ্ক, ভাতা বৃদ্ধি করতে হবে, পারিবারিক ভাতায় নজর দিতে হবে, অফিসারদের কাজের সময় নির্দিষ্ট করতে হবে। এই দাবি না মানার ফলে বন্ধের সিদ্ধান্তে অনড় থাকলেন কর্মীরা। 

আরও পড়ুনঃ 'নাকে তিলের তেল' দিয়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ, উপদেশ দিয়ে হাসির খোরাক আয়ুষ মন্ত্রক

বৃহস্পতিবার দুপুরেই সকল কর্মীদের জানানো হয়, ব্যাঙ্ক ধর্মঘট হচ্ছে। এর জেরে সমস্যার মুখে পড়তে হল সাধারণ মানুষদের। টানা চারদিন বন্ধ ব্যাঙ্ক। ১ ফেব্রুয়ারি শনিবার বন্ধের শেষ দিন, তারপরই পরেছে রবিবার। যার ফলে ব্যাঙ্ক খুলতে আবার সেই সোমবার। চলছে এখন বিয়ের মরসুম। পাশাপাশি, নিত্যপ্রয়োজন থেকে শুরু করে, বিপদ-আপদ। অর্থের যথাযত যোগান কতক্ষণ দিতে পারবে দেশের এটিএমগুলি তা নিয়ে সাধারণ মানুষের কপালে ভাঁজ পড়েছে ইতিমধ্যেই।