সিঙ্গুর আন্দোলনের দিনেই দিল্লি সীমান্ত এলাকায় অবস্থান বিক্ষোভরত কৃষকদের সঙ্গে কথা বললেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোরাধ্যায়। তিনি মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই এক কৃষক নেতার সঙ্গে কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর তীব্র সমালোচনা করেন। একই সঙ্গে আন্দোলনে কৃষকদের পাশে থাকার বার্তা দেন। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরক ওব্রায়েনর মোবাইল ফোনেই তিনি পঞ্জাবের এক কৃষক নেতার সঙ্গে কথা বলেন। পরবর্তী সময় তিনি কৃষক আন্দোলনের খোঁজ খবর নেন রাজনীতিবিদ যোগেন্দ্র যাদবের কাছ থেকে। 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন কৃষকদের সঙ্গে কথা বলার সময় তাঁর সিঙ্গুর আন্দোলনের কথা উত্থাপন করেন। তিনি বলেন, তিনিও কৃষকদের স্বার্থে ও কৃষি জমি রক্ষার জন্য টানা  ২৬ দিন অনশন করেছিলেন। এদিন তৃণমূল নেত্রী বলেন, তিনি ও বাংলার মানুষ আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে রয়েছেন। বাংলা থেকে যদি কোনও সাহায্যের প্রযোজন হয় তাহলে তিনি এগিয়ে যাবেন। তিনি আরও বলেন তাঁদের আন্দোলনের প্রতি তাঁর পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। আর এই আন্দোলন শুধুমাত্র তাঁদের নয়। এই আন্দোলন গোটা দেশের বলেও জানিয়েছেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়  কৃষি বিল প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন । কৃষক নেতাদের পক্ষ থেকেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্বাগত জানানহয়েছে। 


আজ থেকে ১৪ বছর আগে এই দিনেই শুরু হয়েছিল সিঙ্গুরের কৃষক আন্দোলন। জোর করে কৃষি জমি অধিগ্রহণের প্রতিবাদে তৎকালীন বাম সরকারের বিরুদ্ধে কলকাতায় অবস্থান বিক্ষোভে বসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টানা ২৬ দিন অনশন করেছিলেন তিনি। শুক্রবার সকালে কৃষকদের দিল্লি অভিযানের সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে তিনি বলেন বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনায় না বসে কৃষি আইন পাশ করেছে কেন্দ্র। আর সেই আইনেক প্রতিবাদে আন্দোলনকারী কৃষকদের জন্য তাঁর পূর্ণ সহমর্মিতা রয়েছে।