বিহারে প্রথম দফার ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার পরেই বিতর্কের মুখোমুখি হতে হল কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধীকে। বুধবার সকাল থেকেই ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিহারের ৭১টি বিধানসভা কেন্দ্রের। আর  তারপরই সকাল ৯টা নাগাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। সেই বার্তাতেই তিনি মহাজোটের পক্ষো ভোট দেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন বিহারের বাসিন্দাদের। তিনি ন্যায়বিচার, কর্ম সংস্থান, কৃষক ও শ্রমিকদের স্বার্থে মহাজোটকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। 

সকাল ৯টা নাগাদ হিন্দিতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। চলতি বিহার নির্বাচনে আরজেডি ও বামদলগুলির সঙ্গে জোট বেঁধেছে কংগ্রেস। আর মহাজোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী লালু পুত্র তেজস্বী যাদব। নীতিশ কুমারের জেডিইউ ও বিজেপি ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোটে লড়ছে। এনডিএর মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হলেন নীতিশ কুমার। মহাজোটের প্রথম অ্যাজেন্ডাই হল বিহারে কর্ম সংস্থান। আর ভোট শুরু হওয়ার পরেও কর্ম সংস্থানের পক্ষেই সওয়াল করেন রাহুল গান্ধী। 


সোশ্যাল মিডিয়ায় রাহুল গান্ধীর ওই বার্তার পরেই সরব হয় বিজেপি। রাহুল গান্ধী এজাতীয় বার্তায় দিয়ে নির্বাচনী নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ তোলে বিজেপি নেতৃত্ব। ভোট শুরু হওয়ার পরে  কংগ্রেস সাংসদ কী করে বিহারের জনতার কাছে মহাজোটকে ভোট দেওয়ার আর্জি জানালেন তাই নিয়েও প্রশ্ন তোল বিজেপি। বিধিবঙ্গের অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হতে পারে বিজেপি। তেমনই আলোচনা শুরু হয়েছে দলের অন্দরে।