বিহারের ভোটে উঠে এল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথা। শনিবার বিহারের মহাজোটের শরিক - কংগ্রেস, রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) এবং বাম দলগুলি, আসন্ন রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের জন্য তাদের ইস্তেহার প্রকাশ করল। সেখানেই কেন্দ্র ও নীতিশ কুমারের 'ডাবল ইঞ্জিন সরকার' থাকা সত্ত্বেও বিহারের বিশেষ মর্যাদা না পাওয়ার বিষয়টিকে কটাক্ষ করে, মহাজোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী তথা আরজেডি নেতা তেজশ্বী যাদব বলেন, 'মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তো আর বিহারে এসে তাকে বিশেষ মর্যাদা দেবেন না'।

শুধু, বিহাররে বিশেষ মর্যাদা না পাওয়া নিয়েই নয়, এদিন এই আরজেডি নেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর গত বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারের সময় দেওয়া অপূর্ণ প্রতিশ্রুতিগুলিকেও একে একে তুলে ধরেন। তাঁর অভিযোগ রাজ্যের চিনি কল, পাটকল, কাগজকল, ধানকল সবই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। নতুন কোনও খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট প্রতিষ্ঠা করা হয়নি। এনডিএ সরকারের বিরুদ্ধে ৬০টি দুর্নীতির মামলা আছে। রাজ্যে অপরাধের সংখ্যাও ক্রমে বাড়ছে। এছাড়া রাজ্যের কর্মসংস্থানের অভাবকেও তুলে ধরেন মহাগোট বন্ধনের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী।  

এর পাশাপাশি কেন্দ্রের সদ্য আনা তিনটি কৃষি বিল-ও বাতিল করবে তাদের সরকার, বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে মহাগোটবন্ধন। কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা এদিন বলেন, আরজেডি-র তেজশ্বী যাদবের নেতৃত্বে মহাজোট যদি নির্বাচনে জেতে, তবে জোট সরকার প্রথম বিধানসভার অধিবেশনেই এই তিনটি 'কৃষি-বিরোধী আইন' বাতিল করার জন্য একটি বিল পাস করবে। সেইসঙ্গে, বিজেপিকে একহাত নিয়ে সুরজেওয়ালা অভিযোগ করেন, বিজেপি বিহারে আসলে তিনটি জোট গড়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। প্রথম জোট জনতা দল (ইউনাইটেড) এর সঙ্গে, যা তারা ঘোষণা করেছে। এর সঙ্গে সঙ্গে তলে তলে তাদের জোট রয়েছে লোক জনশক্তি পার্টির (এলজেপি) সঙ্গেও। তাছাড়াও 'ওয়াইসি সাহেব' অর্থাৎ আসাদউদ্দিন ওয়াইসির এআইমিম দলের সঙ্গেও বিজেপির গোপন আঁতাত আছে বলে দাবি করেন কংগ্রেস নেতা।