বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে অন্ধ্রে সরকার গঠন করেছে ওয়াইএস আর কংগ্রেস সরকার। জুলাই মাসে সেরাজ্যের সমস্ত বেসরকারি সংস্থা, কল-কারখানায় পঁচাত্তর শতাংশ চাকরি রাজ্যের বাসিন্দাদের জন্য সংরক্ষিত রাখার প্রথা চালু করে প্রশংসিত হয়েছিলেন তিনি। আর এবার বিজেপির তোপের মুখে পড়লেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াইএস জগন্মোহন রেড্ডি। 

বিজেপির দাবি জগন্মোহন রেড্ডি একজন হিন্দু-বিরোধী। প্রসঙ্গত, বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্টেরে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। অন্ধ্রপ্রদেশের মতো রাজ্যে মার্কিন বিনিয়োগ আনতেই ছিল তাঁর আমেরিকা সফর।  এদিন অন্ধ্রপ্রদেশের বিজেপির দাবি, সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে অনুষ্ঠান শুরুর আগে প্রদীপ জ্বালানি তিনি। এই অভিযোগের পাল্টা হিসাবে অন্ধ্রপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয় যে, আমেরিকার সেই অনুষ্ঠানে প্রদীপ জ্বালানোর কোনও বন্দোবস্ত ছিল না বলেও জানান হয়েছে। অনুষ্ঠানে কেবল বিদ্যুতের আলোই জ্বালানো হয়েছিল।  

শুধু তাই নয়, জগন্মোহন আদতে প্রদীপ প্রজ্বলন করতে চাননি- এমনটাই দাবি করে বিজেপির তরফে তাদের অভিযোগের সপক্ষে একটি ভিডিও ক্লিপও প্রকাশ করা হয়। সেই ভিডিও ক্লিপে দেখা গিয়েছে, প্রদীপের দিকে হাত বাড়িয়ে হাসি মুখে দাঁড়িয়ে রয়েছেন জগন্মোহন এবং তারপর তিনি সেখান থেকে হেঁটে বেরিয়ে যান। অনুষ্ঠানটির উদ্যোগ নিয়েছিলেন, আমেরিকায় বসবাসকারী তেলুগু ভাষাভাষির প্রবাসী ভারতীয়রা। 

ব্যবসার জন্য ঋণ দেয়নি ব্যাঙ্ক, কিডনি বিক্রির বিজ্ঞাপন দিলেন গম-চাষি

এদিন বিজেপির তরফে টুইট করে আরও বলা হয় যে, তিনি আদতে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করতে অস্বীকার করেছেন। অন্ধ্রপ্রদেশে বসবাসকারী হিন্দুদের আদতে তিনি বোকা বানাচ্ছেন। রাহুল গান্ধীর মতো ভোটের জন্যই তিনি হিন্দু ছিলেন।