শহরের অলিতে-গলিতে বিভিন্ন দেওয়ালে ছেয়ে গিয়েছে পোস্টার 'কিডনি দিতে চাই'। বিষয়টি আর পাঁচটা স্বাভাবিক কিডনি দানের মতো মনে হলেও বিষয়টি কিন্তু সেরকম একেববারেই নয়। এর নেপথ্যে থাকা কারণ জানলে অবাক হবেন আপনিও। 

উত্তরপ্রদেশের সাহাপুর নিবাসী ৩০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি নিজের কিডনি দান করতে চেয়ে পোস্টার দিয়েছেন। কিন্তু জানা গিয়েছে নিজের একটি ব্যবসা শুরু করার জন্য ব্যাঙ্কের কাছ থেকে ঋণ চেয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু নিজের ব্যবসা শুরু করার জন্য লোন দেয়নি ব্যাঙ্ক আর সেই কারণেই নিজের কিডনি বিক্রি করে ব্যবসা শুরু করার পরিকল্পনা করেন তিনি। 

বছর ত্রিশ-এর এই জনৈক ব্যক্তির নাম রাম কুমার। পেশায় তিনি একজন কৃষক। জানা গিয়েছে কৃষিকাজের পাশাপাশি তিনি তিনটি সার্টিফিকেট কোর্সও করেছিলেন। সূত্রের খবর, দুগ্ধ প্রকল্প, পশুপালন-এর ওপর বিশেষ সার্টিফিকেট কোর্স করা রয়েছে তাঁর। সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কৌশল বিকাশ যোজনার অধীনেও করেছেন একটি কোর্স। আর এরপরই নিজের একটি ব্যবসা শুরু করার জন্যই ব্যাঙ্কের কাছ থেকে ঋণের আবেদন জানান তিনি। কিন্তু তা পাননি বলে অভিযোগ। 

আরও পড়ুন- রাস্তা নেই, জলপথে ১২ কিলোমিটার রাস্তা পায়ে হেঁটে নিয়ে যাওয়া হল প্রসূতিকে

স্ত্রী ও চার সন্তানের পরিবারের তাঁর। গম চাষ করে তিনি যা উপার্জন করেন তাতে পরিবারের খরচ বহন করতে পারছিলেন না তিনি। প্রতিমাসে ৩০০০ টাকা উপার্জন তাঁর, যা দিয়ে সংসার চালানো প্রায় অসম্ভব। আর সেইকারণেই নিজের ব্যবসা শুরু করার পরিকল্পনা করেন তিনি। কিন্তু ব্যাঙ্কের কাছ থেকে ঋণ না পেয়ে দেওয়ালে পোস্টার লাগানোর পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও কিডনি বিক্রির কথা ঘোষণা করেন তিনি। এরপর দেশ বিদেশ থেকে বহু মানুষ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেন বলেও জানা গিয়েছে।